সোমবার, অক্টোবর ১৮, ২০২১

আশঙ্কা মুক্ত হওয়ায় হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন রশিদ আল গানুশী

মেডিকেল চেকআপের পর হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন আন-নাহদা পার্টির সহপ্রতিষ্ঠাতা তিউনিসিয়ার প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও সংসদ স্পিকার রশিদ আল গানুশী।

রবিবার (১আগস্ট) তিউনিসিয়ার বিপ্লবী রাজনৈতিক সংগঠন আন-নাহদার পক্ষ থেকে এবিষয়ে একটি বিবৃতি জারি করা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, গত শনিবার অসুস্থতা বোধ করায় রশিদ আল গানুশীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিলো। তবে প্রয়োজনীয় মেডিকেল চেকআপ শেষে তেমন কোনো আশঙ্কা না থাকায় তাকে হাসপাতাল ছেড়ে যাওয়ার অনুমতি দেয় চিকিৎসকরা। মেডিকেল চেকআপ ও সামান্য চিকিৎসা নিয়ে তিনি হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে এসেছেন।

রশিদ গানুশীর উপদেষ্টা মাহির মাহয়ুব তার সুস্থতার বিষয়টি নিশ্চিত করে একটি টুইট বার্তা দেন। যেখানে তিনি বলেছিলেন, মাননীয় সংসদ স্পীকারের স্বাস্থ্য ঠিক আছে। টুইটে এর চেয়ে বিস্তারিত আর কিছু উল্লেখ করেননি তিনি।

এর আগে গত মাসেও করোনা পজিটিভ আসায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিলো বলে জানা যায়।

উল্লেখ্য, তিউনিসিয়ায় গত সপ্তাহের উদ্ভুত জাতীয় সংকট সৃষ্টিকারী প্রেসিডেন্ট কায়েস সাঈদের তীব্র সমালোচনা করেছিলেন দেশটির বিপ্লবী রাজনৈতিক সংগঠন আন-নাহদার সহপ্রতিষ্ঠাতা, প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ও সংসদ স্পিকার রশিদ আল গানুশী। তিনি কায়েস সাঈদের স্বৈরাচারী কর্মকাণ্ডকে বিপ্লব ও সংবিধান বিরুদ্ধ বলে আখ্যায়িত করেছিলেন।

জাতীয় সংকট সৃষ্টির অভিযোগে দেশটির প্রেসিডেন্ট কায়েস সাঈদ তীব্র সমালোচনার শিকার হলেও তিনি আত্মপক্ষ সমর্থনে খুব জোর দিয়ে বলে যাচ্ছেন যে, তার ব্যতিক্রমী পদক্ষেপগুলো দেশকে বাঁচানোর লক্ষ্যেই গৃহীত।

ইয়েমেন, লিবিয়া ও মিশরসহ অন্যান্য আরব রাষ্ট্রের মাঝে তিউনিসিয়াই একমাত্র দেশ যারা আরব বসন্তের ঢেউ সামাল দিয়ে সফলভাবে গণতান্ত্রিক পরিবর্তন এনে তা ধরে রাখতে সমর্থ হয়েছে। অথচ অন্যান্য আরব দেশগুলোতে একনায়কতন্ত্রের পতন ঘটে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার বাস্তবায়ন ঘটলেও তারা তা ধরে রাখতে পারেনি। উল্টো প্রথমবারের মতো গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নির্বাচিত মিশরের একমাত্র প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদ মুরসীকে বিশ্বাসঘাতকতার নীল ছোবলে শহীদ করে দেয় স্বৈরাচারী জেনারেল আব্দুল ফাত্তাহ আল সিসি!

সূত্র: মিডল ইস্ট মনিটর।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img