বুধবার, মে ২৫, ২০২২

আগে জনগণের রুটির ব্যবস্থা করুন, তারপর লকডাউন দিন: ইশা ছাত্র আন্দোলন

করোনা মহামারী বেড়ে যাওয়ার দোহাই দিয়ে দ্বিতীয় দফায় সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এবং এ সিদ্ধান্ত দরিদ্র মানুষের গলার কাটা বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সভাপতি নূরুল করীম আকরাম।

তিনি বলেন, এমন লকডাউন জনগণ মেনে নেয়নি। আগে জনগণের রুটি রুজির ব্যবস্থা করুন। তার পর লকডাউন দিন। জনগণ সম্মানের সাথে বিধিনিষেধ মেনে চলবে।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) হাউজ বিল্ডিং চত্বরে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ঢাকা মহানগর আয়োজিত বৈশ্বিক করোনা মহামারীতে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ না করে দ্বিতীয় ধাপে ঘোষিত দেশব্যাপী লকডাউনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

নূরুল করীম আকরাম বলেন, লকডাউন নামক এই প্রহসনের নাটক মানুষ আর দেখতে চায় না। সরকার একদিকে লকডাউন ঘোষণা করেছে, অন্যদিকে শিল্প কারখানা, বইমেলা ও অফিস-আদালত খোলা রেখেছে। আবার একদিকে সাধারণ মানুষের যাতায়াতের মাধ্যম পাবলিক বাসগুলো বন্ধ রেখেছে, অন্যদিকে এলিটদের ব্যক্তিগত গাড়ি চলতে দিচ্ছে। এটা কেমন বৈষম? এটা কেমন দ্বিচারিতা আচরণ? এলিটময় গরিবের কাঁটা লকডাউনের নাটক এখনই বন্ধ করুন। জনগণ ইতোমধ্যে লকডাউনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে রাস্তায় নামতে শুরু করেছে। জনগণকে দমিয়ে রাখা যাবে না।

তিনি বলেন, ২০২০ সালের ২৬ মার্চ থেকে ঘোষিত লকডাউনের কারণে সাধারণ মানুষের যে ভোগান্তি তৈরি হয়েছিল, তা এখনো শেষ হয়নি। ব্যবসা-বাণিজ্য থেকে আর্থিক সকল খাত নড়বড়ে হয়ে গেছে। এখন নতুন করে সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় উদ্ভূত পরিস্থিতিতে জনগণের রুটি রুজির ব্যবস্থা ও কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ না করে দ্বিতীয় ধাপে দেশব্যাপী আবারো লকডাউনের সিদ্ধান্ত খাম খেয়ালি ও দায়িত্বজ্ঞানহীন সিদ্ধান্ত।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img