অনুমতি দেওয়ার পর আবারও চাল রফতানি বন্ধ দিয়েছে ভারত

দেশের বাজারে চালের মূল্য স্বাভাবিক রাখতে দেড় বছর পর ভারত থেকে চাল আমদানি শুরুর কয়েকদিনের মাথায় আবারও আমদানিকৃত চালের এইচএসকোড নিয়ে জটিলতার কারণ দেখিয়ে গত ১৩ জানুয়ারি থেকে চাল রফতানি বন্ধ দিয়েছে ভারত। এতে করে দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে দেশে প্রবেশের অপেক্ষায় ভারতের অভ্যন্তরে কয়েক হাজার টন চাল আটকা পড়েছে।

সূত্রে জানা গেছে, চাল আমদানির অনুমতির পর গত ৯ জানুয়ারি বন্দর দিয়ে ভারত থেকে চাল আমদানি শুরু হয়। ওই দিন বন্দর দিয়ে ৩টি ট্রাকে ১১২ টন চাল আমদানি হয়। এর পরদিন ১০ জানুয়ারি বন্দর দিয়ে ২০টি ট্রাকে ৮২৮ টন চাল আমদানি করা হয়। একইভাবে ১১ জানুয়ারি বন্দর দিয়ে ৮টি ট্রাকে ৩২৯ টন এবং ১২ জানুয়ারি বন্দর দিয়ে ২৩টি ট্রাকে ৮৮৪ টন চাল আমদানি হয়। কিন্তু এরপর এইচএসকোড নিয়ে জটিলতা দেখিয়ে ভারত বন্ধ করে দেয়।

দেশীয় কৃষকের উৎপাদিত ধানের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করতে চাল আমদানিতে ৬২.৫ শতাংশ শুল্ক আরোপ করায় চাল আমদানিতে পড়তা না থাকায় ২০১৯ সালের ৩০ মে বন্দর দিয়ে চাল আমদানি বন্ধ হয়ে যায়। সম্প্রতি চালের শুল্ক ৬২.৫ থেকে দুদফা কমিয়ে ১৫ ভাগ করে সরকার। এর পর বন্দর দিয়ে চাল আমদানি শুরু হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *