মঙ্গলবার, অক্টোবর ২৬, ২০২১

গৃহবন্দী অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন সিনিয়র কাশ্মীরী হুররিয়াত নেতা সৈয়দ আলি গিলানী

দখলদার ভারতীয় সেনাবাহিনী কর্তৃক বহু বছরে ধরে গৃহবন্দী থাকা সিনিয়র কাশ্মীরী হুররিয়াত নেতা সৈয়দ আলি গিলানী নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহী ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) মরহুমের পরিবারের একজন সদস্য মিডিয়াকে তার ইন্তেকালের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

জানা যায়, তিনি বহুদিন যাবত বিভিন্ন রোগে ভুগছিলেন এবং কাশ্মীরের শ্রীনগরে অবস্থিত নিজ বাসভবনে ভারতীয় সেনাদের নজরদারিতে ছিলেন।

অপরদিকে একটি ফরাসি সংবাদ সংস্থা স্থানীয়দের উদ্ধৃতি দিয়ে তাদের খবরে বলছে, ভারতীয় সেনারা আলি গিলানীর ইন্তেকালের পর ওই অঞ্চলটির নিরাপত্তা বহুগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে। গিলানীর বাসভবনে যাওয়ার সব রাস্তায় রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা ও সীমান্তে ব্যবহৃত কাটা তার বসিয়ে এলাকাটিকে একপ্রকার অচল করে দিয়েছে।

কাশ্মীরী মিডিয়াগুলোর তথ্যমতে গিলানীর জানাজা ও দাফনকে কেন্দ্র করে সম্ভাব্য জনস্রোত ঠেকাতে ওই এলাকায় কারফিউও জারি করতে পারে ভারতের হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকার।

উল্লেখ্য, মরহুম সৈয়দ আলি গিলানী ১৯২৯ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ভারত দখলকৃত কাশ্মীরের জামায়াতে ইসলামীর একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য ছিলেন। পরবর্তীতে তিনি তাহরিকে হুররিয়াত নামে নিজের একটি দল প্রতিষ্ঠা করেন। মরহুম এই কাশ্মীরী নেতা অল পার্টিজ হুররিয়াত কনফারেন্সের সভাপতি ছিলেন বলেও জানা যায়।

তিনি দখলকৃত কাশ্মীরে ভারতের দখলদারিত্বের ঘোরতর বিরোধী ছিলেন। সবাই তাকে ভারত সরকার কর্তৃক নিপীড়িত অসহায় কাশ্মীরীদের পক্ষের বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর হিসেবে চিনে।

এদিকে আজাদ কাশ্মীরের প্রধানমন্ত্রী সরদার আব্দুল কাইয়ুম নিয়াজি সৈয়দ আলি গিলানীর ইন্তেকালে শোক প্রকাশ করেন এবং কাশ্মীরের স্বাধীনতা আন্দোলনের জন্য তার আজীবন প্রচেষ্টার কথা প্রশংসা ভরে স্মরণ করেন।

তাছাড়া দখলকৃত কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতিও তার ইন্তেকালে শোক প্রকাশ করেন।

শোক বার্তায় তিনি বলেন, সৈয়দ আলি গিলানী আজীবন নীতির উপর অটল থেকেছেন। মতপার্থক্য থাকা সত্ত্বেও সর্বদা আমি তাকে শ্রদ্ধা ও সম্মান করতাম।

সূত্র: জিও নিউজ

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img