শনিবার, জুলাই ২, ২০২২

এরদোগানের হাত ধরে ৮৬ বছর পর পুনরায় চালু হলো ইস্তাম্বুলের ঐতিহাসিক ফাতিহ মাদরাসা

ইনসাফ | নাহিয়ান হাসান


মুসলিম বিশ্বের জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগানের হাত ধরে দীর্ঘ ৮৬ বছর পর পুনরায় চালু হয়েছে ইস্তাম্বুলের ইতিহাসের সর্বপ্রথম দ্বীনি শিক্ষাকেন্দ্র ফাতিহ মাদরাসা।

শুক্রবার (১৫ এপ্রিল) পুনঃসংস্কার হওয়া ঐতিহাসিক মাদরাসাটির উদ্বোধন করেন তিনি।

পুনরায় ফাতিহ মাদরাসা চালু করার ব্যাপারে উদ্বোধনকালে এরদোগান বলেন, বর্তমান ও ভবিষ্যতকে আমাদের দুর্দান্ত অতীত ইতিহাসের জানান দিতে এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। আমরা আমাদের জনগণের সাথে একত্রে তা আবার ফিরিয়ে আনবো, ইনশা আল্লাহ।

ইস্তাম্বুল বিজয়ের পর আয়াসোফিয়া সংলগ্ন এই স্থানটিকে সুলতান মুহাম্মদ আল ফাতিহ মাদরাসা শিক্ষার জন্য নির্ধারণ করেছিলেন, যা ছিলো শহরের সর্বপ্রথম মাদরাসা।

রক্ষণাবেক্ষণ, সংস্কার ও পুনঃনির্মাণের মাধ্যমে ১৯২৪ সাল পর্যন্ত মাদরাসাটি তার শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে সক্ষম হয়েছিলো। কিন্তু যারা দেশের সমৃদ্ধ ইতিহাস মুছে দিতে চায় পরবর্তীতে তারা মাদরাসাটি ধ্বংস করে দেয়।

এরদোগান বলেন, প্রশিক্ষণের মাধ্যমে অসংখ্য দক্ষ শিক্ষাবিদ গড়ে তুলতে প্রায় সাড়ে ৪ শতাব্দী যাবত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করা মাদরাসাটি এখন থেকে আবার শিক্ষা কেন্দ্র হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে।

ফাতিহ সুলতান মেহমেত ইউনিভার্সিটির তত্ত্বাবধানে মাদরাসাটি পরিচালিত হবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, ১৪৫৩ সালে ঐতিহাসিক ইস্তাম্বুল বিজয়ের পর সুলতান মুহাম্মাদ আল ফাতিহ আয়াসোফিয়াকে সর্বপ্রথম মসজিদে রূপান্তরিত করেন এবং শহরের শিক্ষার অভাব মেটাতে তৎসংলগ্ন স্থানে একটি মাদরাসা প্রতিষ্ঠা করেন। স্বয়ং উসমানীয় ৭ম সুলতান, সুলতান মুহাম্মদ (২য়) আল ফাতিহ শিক্ষা কেন্দ্রটির নাম দিয়েছিলেন ফাতিহ মাদরাসা করে যা ১৯২৪ সাল পর্যন্ত টিকে ছিলো। আর এটিই ছিলো ইস্তাম্বুলের ইতিহাসের সর্বপ্রথম মাদরাসা।

সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img