ট্রাম্পের পর বাইডেনও দিলেন আগাম ভোট

আসন্ন মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে আগাম ভোট দিয়েছেন ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী জো বাইডেন। নিজ এলাকা ডেলাওয়ার অঙ্গরাজ্যের উইলমিংটন শহরে স্থানীয় সময় বুধবার স্ত্রী জিল বাইডেনকে সঙ্গে নিয়ে ভোট দেন তিনি।

ডেলাওয়ার অঙ্গরাজ্যে এদিন করোনাভাইরাস নিয়ে বিবৃতি দেওয়ার জন্যও গিয়েছিলেন বাইডেন। তিনি করোনাভাইরাস নিয়ে নিজের পরিকল্পনার কথা সাংবাদিকদের জানান এবং করোনা মোকাবিলায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কড়া সমালোচনাও করেন।

বাইডেন বলেন, ‘আমি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে শুধু নিজের জন্য নয়, বরং সবার জন্যই হব। এমন একজন হব, যে সবাইকে ভাগ করবে না, বরং ঐক্যবদ্ধ করবে। নিজের ইচ্ছা দিয়ে নয়; বরং বিজ্ঞান, যুক্তি ও তথ্যের ভিত্তিতে পরিচালিত হবে (যুক্তরাষ্ট্র)।’

এর আগে স্থানীয় সময় শনিবার আগাম ভোট দেন বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। শনিবার সকালে ফ্লোরিডার ওয়েস্ট পাম বিচ এলাকায় আগাম ভোট দেন তিনি। পরে নিজেই প্রকাশ্যে জানিয়ে দেন, ‘ডোনাল্ড ট্রাম্প নামের একজনকে ভোট দিয়েছি।’

এদিকে গতকাল বুধবার পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সাত কোটির বেশি নাগরিক আগাম ভোট দিয়েছেন। এ সংখ্যাটি ২০১৬ সালের নির্বাচনে পড়া মোট ভোটের অর্ধেকেরও বেশি বলে মঙ্গলবার ইউএস ইলেকশন প্রজেক্টের টালিতে দেখা গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের এবারের নির্বাচনে রেকর্ডসংখ্যক আগাম ভোট পড়ছে। ভোটের এ গতি বজায় থাকলে এক শতাব্দীর বেশি সময়ের মধ্যে এবার ভোট পড়ার হার সর্বোচ্চ হতে পারে।

এতে রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তাঁর ডেমোক্র্যাট প্রতিপক্ষ জো বাইডেনের প্রতিদ্বন্দ্বিতা নিয়ে ভোটারদের তীব্র আগ্রহেরও ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।

ডাকযোগে ভোট দেওয়া নিয়ে ডেমোক্র্যাটরা বেশি আগ্রহী হওয়ায় আগাম ভোটে তারা বেশ সুবিধাজনক অবস্থানে আছে। ঐতিহ্যগতভাবে রিপাবলিকানরাও ডাকযোগে প্রচুর ভোট দিয়ে থাকেন, কিন্তু এবার এ পদ্ধতির বিষয়ে ট্রাম্পের বারবার ও ভিত্তিহীন আক্রমণের কারণে তারা এটি এড়িয়ে যাচ্ছে। এ পদ্ধতিতে ব্যাপক কারচুপি হতে পারে বলে অভিযোগ করে আসছেন ট্রাম্প।

বিভিন্ন তথ্যে দেখা গেছে, আগাম ব্যক্তিগত ভোটের সংখ্যায় সামগ্রিকভাবে ডেমোক্র্যাটরা মোটামুটি এক ভোটের বিপরীতে দুই ভোট অগ্রগামিতা ধরে রেখেছে; তবে সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে রিপাবলিকানরা এ ব্যবধান অনেকটা কমিয়ে এনেছে।

২০১৬ সালের নির্বাচনে চার কোটি ৭০ লাখ আগাম ভোট পড়েছিল, কিন্তু এবার নির্বাচনী প্রচারণা চলাকালেই চলতি মাসের প্রথম দিকে ওই সংখ্যাটি পার হয়ে গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *