শনিবার, অক্টোবর ২৩, ২০২১

ইনসাফের শুভযাত্রা না হলে হয়তো আজ আমরা সংবাদমাধ্যমের নতুন ধারা পেতাম না

গাজী শরফুদ্দীন বুরহানী | শিক্ষার্থী : জামিয়া ইসলামিয়া লালমাটিয়া মোহাম্মদপুর


ইনসাফ। গণমানুষের আস্থার প্রতীক। ইসলামী ঘরানার মিডিয়াসমূহের পথিকৃৎ। যুগ সচেতন উলামায়ে কেরামদের নির্দেশিত এবং সমন্বিত প্ল্যাটফর্ম।

ইনসাফ শুধু অর্ধযুগ আগে নিজেদের যাত্রাই শুরু করেনি বরং এই পথে চলতে প্রেরণা যুগিয়েছে। আজ ইসলামক ঘরানার যেসকল নিউজ পোর্টাল এবং মিডিয়া আমরা দেখতে পাচ্ছি, অকপটে স্বীকার করি এগুলো সবই ইনসাফের অবদান।

অসংখ্য বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে সাফল্যের সপ্তম বছরে পদার্পণ করেছে প্রিয় এই পত্রিকাটি। ইনসাফ ধীরে ধীরে জাতীয় পর্যায়ের একটি ইসলামী মিডিয়া হিসেবে এগিয়ে যাচ্ছে আলহামদুলিল্লাহ।

ইনসাফকে আমি খুব কাছ থেকে দেখেছি। জেনেছি তাদের কার্যক্রম। শুনেছি তাদের মহান লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য। বলছি ইনসাফের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক সাইয়েদ মাহফুজ খন্দকার সাহেবের কথা। যার অন্তরের পরিশুদ্ধতা ও যুগশ্রেষ্ঠ আলেমদের নির্দেশনায় ইনসাফের অগ্রগতি এবং সাফল্যের চাবিকাঠি। আমি আত্মবিশ্বাসী, কারণ ইনসাফ কে আমি কাছ থেকে দেখেছি।

সাহিত্য এবং মিডিয়া অঙ্গনে কাজের স্বপ্ন থাকায় ইনসাফকে খুবই ভালোবাসতাম। সানুবিয়া পড়াশোনাকালীন সময়ে কাজ করার আগ্রহও জন্মেছিল। সাক্ষাতে কথা বলি সম্পাদক মহোদয়ের সাথে। তিনি আমাকে প্রথম যে কথাটি বলেছিলেন এখানে কাজ করতে হলে খিদমাত এবং দাওয়াহ আল্লাহর নিয়ত থাকতে হবে। কারণ তিনি উপলব্ধি করেছিলেন দ্বীনের সকল কাজের ভিত্তি হল অন্তরের পরিশুদ্ধতা এবং আল্লাহর সন্তুষ্টি।

ইনসাফের বুদ্ধিবৃত্তিক চিন্তা এবং সমকালীন কার্যক্রমগুলো সত্যি আমাদের জন্য গর্বের বিষয়। সমকালীন বিভিন্ন ইস্যুতে যুগের সচেতন উলামাগণ লেখক-গবেষকদের নিয়ে ইনসাফের অনন্য আয়োজন জাতিকে নতুন দিশা দিতে পেরেছে।

ইনসাফ তার লক্ষ্যে দুরন্তপনায় এগিয়ে চলছে। অনলাইন প্রকাশনা ও ভিডিও শো এর পাশাপাশি বেশকিছু কার্যক্রম ইতোমধ্যেই তাদের রয়েছে।

আমি ইনসাফ পত্রিকার অর্ধযুগ পূর্তির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ইনসাফের জন্য দোয়া করি। আল্লাহ তাআলা যেন ইনসাফকে একটি জাতীয় পর্যায়ের মিডিয়া এবং যুগের একটি বিপ্লবী হাতিয়ার হিসেবে কবুল করেন। আমিন!

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img