বুধবার, মে ২৫, ২০২২

তুরস্কে করোনার দ্বিতীয় প্রকোপে দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে আক্রান্তের সংখ্যা

ইনসাফ | নাহিয়ান হাসান


করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় প্রকোপে কর্মক্ষম তুর্কীদের এক শতাংশ, নতুন বৈশিষ্ট্যের করোনায় আক্রান্ত হতে থাকায় বর্তমানে আক্রান্ত তালিকার শীর্ষে ভারতের পরেই অবস্থান করছে তুরস্ক।

মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্সে তুর্কী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে এই পরিসংখ্যান প্রকাশিত হয়।

পরিসংখ্যানে বলা হয়, ২০ মিলিয়নের বেশি করোনা ভ্যাকসিন প্রয়োগ সত্ত্বেও গত সোমবার তুরস্কে একদিনে ৩৪১ জনের রেকর্ড পরিমাণ করোনায় মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে!

তাছাড়া রয়টার্সের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, করোনায় আক্রান্ত হওয়া ৫৭ মিলিয়ন কর্মক্ষম সবল মানুষের মাঝে শুধু তুর্কীদের সংখ্যাই রয়েছে ৫ লক্ষ ৫১ হাজার।

গত সাতদিনে নতুন বৈশিষ্ট্যের ভাইরাস সংক্রমণের গড়পড়তা অনুসারে ৮৪ মিলিয়ন জনসংখ্যার এই দেশটি বৈশ্বিক তালিকার চতুর্থ স্থানে রয়েছে বলে জানা যায়।

গত দু’দিনের হিসাব অনুসারে ব্যাপকভাবে করোনা সংক্রমণের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র ভারত তুরস্কের চেয়ে এগিয়ে আছে!

ইতিমধ্যে ইস্তাম্বুলসহ দেশটির উত্তর-পশ্চিমের ঘনবসতিপূর্ণ অঞ্চলগুলোকে উচ্চ-সংক্রমণশীল এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

এর আগে গত সপ্তাহে দেশটির প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান পরিস্থিতি বিবেচনায় পবিত্র রমজানের আগ মুহুর্তে সামাজিক দূরত্ব ও সামাজিক বিধিনিষেধে আরো কঠোরতা আরোপ করেন।

অপরদিকে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, ইস্তাম্বুল এবং প্রদেশসমূহের মধ্যে জানাক্কালী ও তেকির্দাগ প্রদেশের স্বাস্থ্য কর্মীরা প্রচন্ড চাপ অনুভব করছেন। কেননা সেখানকার নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটগুলোর দুই তৃতীয়াংশেরও বেশি করোনা রোগী দ্বারা পূর্ণ।

তাছাড়া, হাসপাতালে চাপ থাকার দরুন ভ্যাকসিন নেওয়ার উপযুক্ত হওয়া ৫৫ বা তদুর্ধ্ব বয়সী ৩ শতাধিক লোককে রাজধানী আঙ্কারার সিটি হসপিটালের বাইরে ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য অপেক্ষমাণ অবস্থায় দেখা যায়।

উল্লেখ্য, তুরস্কে গত জানুয়ারির মাঝামাঝি সময় থেকে শুরু হওয়া ভ্যাকসিন কর্মসূচির আওতায় মোট ২০.৩ মিলিয়ন ডোস প্রয়োগ করা হয়েছে, যার মধ্যে ৮ মিলিয়ন তুর্কী নাগরিক তাদের ২টি করে ভ্যাকসিনের ডোজ পূর্ণ করেছেন।

সূত্র: মিডল ইস্ট মনিটর

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img