শুক্রবার, জুলাই ১২, ২০২৪

আমরা ফিলিস্তিনিদের পাশে দাঁড়িয়েছি, ভবিষ্যতেও থাকবো : কিউবার প্রেসিডেন্ট

ফিলিস্তিনিদের পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ক্যারিবিয়ান অঞ্চলের অন্যতম প্রভাবশালী দেশ কিউবার প্রেসিডেন্ট মিগেল ডিয়াজ-কানাল।

রবিবার (১৯ নভেম্বর) কিউবার রাজধানী হাভানায় অবস্থিত ‘বিপ্লবী প্রাসাদে’ দেশটির মেডিসিন বিভাগে অধ্যায়নরত ১৪৪ জন ফিলিস্তিনি ছাত্রকে আমন্ত্রণ জানানো হয় প্রেসিডেন্টের পক্ষ থেকে। যার মধ্যে ৫৩ জন গাজ্জা উপত্যকার বাসিন্দা।

তাদের উদ্দেশ্য দেওয়া বক্তব্যে কিউবান প্রেসিডেন্ট বলেন, “তোমাদের সবাইকে আলিঙ্গন করতে পারা সম্মান ও গর্বের বিষয়। আমাদের দেশ ভাতৃপ্রতিম ফিলিস্তিনি জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছে ও ভবিষ্যতেও থাকবে।”

অনুষ্ঠানে ডিয়াজ-কানাল বলেন, আন্তর্জাতিকভাবে সংহতি প্রদর্শনের ক্ষেত্রে তার দেশ একটি সেরা মডেল। কারণ কিউবা শুধুমাত্র কথায় নয়, কাজের বেলাতেও সত্যিকারের সংহতি ও মানবতা রক্ষার অনুশীলন করেছে।

তিনি আরও বলেন, “কিউবায় অবস্থানরত ফিলিস্তিনি যুবকরা তাদের শিকড় হারিয়ে ফেলেনি। তারা আমাদের সাথে তাদের কষ্টকর জীবনের ঘটনা ও অনুভূতি প্রকাশ করে থাকে। এছাড়াও তাদের নিজেদের ভূমি রক্ষা করার দৃঢ় প্রত্যয়ও ব্যক্ত করে থাকে তারা।”

প্রসঙ্গত, এ অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কিউবার প্রধানমন্ত্রী ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

কিউবার দৃঢ় অবস্থানের জন্য দেশটির প্রতি কৃতজ্ঞতা জানায় উপস্থিত ফিলিস্তিনি ছাত্ররা। এছাড়াও আন্তর্জাতিকভাবে দখলদার ইসরাইলের উপর আরও বেশি চাপ প্রয়োগের উপর জোর দেয় তারা। সেই সঙ্গে ফিলিস্তিনিদের ঐতিহ্যবাহী কুফিয়াহ উপহার দেওয়া হয় প্রেসিডেন্টকে।

এরপর, প্রাসাদের উত্তরে অবস্থিত ‘জস মার্টি মেমোরিয়াল স্কোয়ারে’ আয়োজিত কনসার্টে অংশ নেন কিউবার প্রেসিডেন্ট ও ফিলিস্তিনি ছাত্ররা। যেখানে ফিলিস্তিনিদের পক্ষে বিপ্লবী সংগীত পরিবেশন করা হয়।

উল্লেখ্য, ক্যারাবিয়ান এই দেশটিতে মোট ২২৪ জন ফিলিস্তিনি মেডিসিন বিভাগে পড়াশোনা করছে। যার মধ্যে ৭৮ জন গাজ্জার বাসিন্দা। ২০০৫ সালের পর থেকে ১০৪ জনেরও বেশি ফিলিস্তিনি ডাক্তার কিউবা থেকে স্নাতক পাস করেছেন।

সূত্র: মিডল ইস্ট মনিটর

spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_img
spot_img