বৃহস্পতিবার, জুলাই ২৫, ২০২৪

গাজ্জায় ইসরাইলি গণহত্যার সর্বশেষ আপডেট

গত ৪৬ দিন ধরে গাজ্জা উপত্যকায় গণহত্যা চালাচ্ছে ইহুদিবাদী সন্ত্রাসীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলের সেনাবাহিনী। ফলে ফিলিস্তিনি শহীদের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৩০০ জনে। যার মধ্যে ৫ হাজার ৬০০ জন শিশু ও ৩ হাজার ৩৫০ জন নারী।

আহতের সংখ্যা ৩১ হাজার ছাড়িয়েছে। সেই সঙ্গে ৪ হাজার ৪০০ শিশুসহ মোট ৬ হাজার ৫০০ ফিলিস্তিনি এখনও নিখোঁজ রয়েছে।

গাজ্জা উপত্যকার সরকারি গণমাধ্যমের অফিসের তথ্য অনুযায়ী, ২০১ জন স্বাস্থ্যকর্মী ও ৬০ জন সাংবাদিককে হত্যা করেছে দখলদার বাহিনী। এছাড়াও বোমা মেরে ধ্বংস করা হয়েছে ৯৮টি সরকারি ভবনের প্রধান কার্যালয়।

২৬৬টি শিক্ষা কেন্দ্রের উপর বোমা নিক্ষেপ করা হয়েছে যার মধ্যে ৬৬টি পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে।

১৭০ টি মসজিদ লক্ষ্য করে বোমা হামলা চালানো হয়েছে যার মধ্যে ৮৩ টি সম্পূর্ণ ধ্বংস হয়ে গেছে। এছাড়াও ধ্বংস করা হয়েছে খ্রিস্টানদের ৩টি গির্জা।

ইসরাইলি বাহিনীর হামলা ও জ্বালানি সংকটের কারণে ২৫ টি হাসপাতাল ও ৫২ টি স্বাস্থ্য কেন্দ্র বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়াও ৫৫টি অ্যাম্বুলেন্স লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছে দখলদার বাহিনী।

হামলার ফলে ৪৩ হাজার আবাসন ইউনিট পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে গেছে। এছাড়াও আংশিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ২ লাখ ২৫ হাজার আবাসন ইউনিট।

এ সকল ক্ষয়ক্ষতি ও বর্বরতার জন্য দখলদার ইসরাইল ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে দায়ী করেছে গাজ্জা উপত্যকার সরকারি গণমাধ্যম অফিস। এছাড়াও এ রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ বন্ধ করতে উন্মুক্ত বিশ্বকে ইসরাইলের উপর চাপ সৃষ্টি করার আহ্বান জানানো হয়েছে।

সূত্র: দি প্যালেস্টানিয়ান ইনফরমেশন সেন্টার

spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_img
spot_img