ফ্রান্সের ইসলামবিদ্বেষী নীতির প্রতি ভারত কেন সমর্থন দিচ্ছে?

ভারতের হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করেছে। মহানবী হজরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে অবমাননার প্রতি ম্যাক্রোঁর সরকার আনুষ্ঠানিক সমর্থন দেওয়ার পর বিশ্বব্যাপী মুসলিমরা তার সমালোচনায় সোচ্চার হওয়ার প্রেক্ষাপটে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই সমর্থন দেয়। এর আগে ভারতের উগ্র হিন্দু সংখ্যাগরিষ্ঠ সমাজ সক্রিয়ভাবে ফ্রান্সের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করে। তথাকথিত ‘মতপ্রকাশের স্বাধীনতার’ প্রতি ভারতের মৌন সমর্থনের বিষয়টি এখন স্পষ্ট।

অনেক কারণেই ভারতীয় রাষ্ট্র ও সংখ্যাগরিষ্ঠবাদী সমাজ এই অবস্থান গ্রহণ করতে পারে। ফ্রান্স সম্প্রতি গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্র সরবরাহকারীতে পরিণত হওয়ায় দুই দেশের মধ্যে ঘনিষ্ঠ সামরিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তারা আফ্রো-এশিয়ান (ভারত) মহাসাগরে আরো ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। সম্ভবত ভারত কোয়াড+ফ্রেমওয়ার্কের পরবর্তী সদস্য হতে চলেছে। ভারতের উগ্র হিন্দুত্ববাদী সমাজের জন্য ফরাসি স্কুলশিক্ষক নিহত হওয়ার পর যে ইসলামবিরোধী কর্মকাণ্ড চলছে, তা খুশির খবর। হিন্দুত্ববাদীরা মতপ্রকাশের স্বাধীনতার আড়ালে তা উদযাপন করছে।

ভারতে আসলে হিন্দুত্ববাদী দর্শন প্রচারের জন্যই তা করা হচ্ছে। আর এর মধ্য দিয়ে ভারতীয়রা তথাকথিত ‘সভ্যতার সঙ্ঘাতে’ পাশ্চাত্য সভ্যতার পক্ষে তাদের অবস্থানের কথা প্রকাশ করছে।

ভারতের উগ্র হিন্দুত্ববাদী শক্তি অনেক বছর ধরেই সক্রিয়ভাবে এমন কিছুর জন্য কাজ করে যাচ্ছে। তারা মনে করছে, তাদের এমন অবস্থান গ্রহণ পাশ্চাত্য সমাজগুলোতে তাদের সফট পাওয়ারের মূল্য বাড়াবে এবং এর ফলে তাদের দেশে বিদেশী বিনিয়োগও আসবে।

সূত্র: সাউথ এশিয়ান মনিটর ও এক্সপ্রেস ট্রিবিউন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *