শনিবার, অক্টোবর ৮, ২০২২

সরকার মানুষের রক্ত চুষে খাচ্ছে : ড. রেজা কিবরিয়া

গণঅধিকার পরিষদের আহ্বায়ক ড. রেজা কিবরিয়া বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার মানুষের রক্ত চুষে খাচ্ছে। আজ দেশের এ অবস্থার জন্য সরকার দায়ী। এই দুরবস্থার কারণ চার ভাগের তিন ভাগ সরকারের। সরকার দুর্নীতি করে দেশের অর্থনীতির দুরবস্থা সৃষ্টি করেছে। এই দুরবস্থার থেকে উদ্ধার করতে হলে পেশাজীবীদের এক হওয়া উচিত।

শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকেলে জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সালাম মিলনায়তনে পেশাজীবী অধিকার পরিষদ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ড.রেজা কিবরিয়া বলেন, বর্তমান সরকার অর্থনীতি ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছে। এই সরকার দেশটি শুধু বিক্রি করে দেয়নি, দেশের মানুষকেও বিক্রি করে দিয়েছে। সরকারের অনেকে বলে ইংল্যান্ডেরও অবস্থা ভালো নেই, আমার প্রশ্ন এটা কি গাইবান্ধার ইংল্যান্ড, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ইংল্যান্ড, তারা কি বুঝাতে চাচ্ছে?

তিনি বলেন, সরকারের কৃতকর্ম সমাজের সবার কাছে তুলে ধরতে হবে। এতে পেশাজীবীরা মুখ্য ভূমিকা পালন করতে পরে। তারা সভা-সেমিনার, মানববন্ধন, সিম্পোজিয়ামের আয়োজন করে সরকারের দুর্নীতির বিরুদ্ধে জনসমক্ষে তুলে ধরে সরকারের দুষ্কর্ম ও সরকারবিরোধী মত সৃষ্টি করতে হবে। জনগণকে নিয়ে ‘সরকার হঠাও’ আন্দোলনে অংশগ্রহণ করতে হবে। এই দুর্নীতিবাজ সরকার থেকে দেশের অর্থনীতি উদ্ধার করতে হবে।

ড. রেজা কিবরিয়া বলেন, বর্তমান সরকারের ক্ষমতায় থাকার মূল উদ্দেশ্য টাকা লুট করা। এর বাইরে সরকারের খুব বেশি মাথা ব্যথা নেই। দেশে স্বল্পমেয়াদি, দীর্ঘমেয়াদি কি ক্ষতি করছে তারা এনিয়ে তাদের কোনো মাথা ব্যথা নেই। দেশের সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক অবকাঠামো ধ্বংস করে তারা লুট করবে এতে তাদের কোনো সমস্যা নেই।

তিনি বলেন, ১৬ কোটি মানুষের বদ দোয়ার বোঝা কতদিন এ সরকার বইবে? ভবিষ্যতে এই সরকারকে সরানোর একটা সুযোগ আসবে। তাই আমাদের আন্দোলনমুখী থাকতে হবে। দেশের মানুষ যে কষ্টে আছে এবং কি কারণে কষ্টে আছে সেটা আমাদের পরিষ্কার করা দরকার। ৫১ বছরে সাধারণ কৃষক বা রিকশাচালকের স্বার্থে পেশাজীবী কিংবা বুদ্ধিজীবীরা রক্ষা করেননি। কিন্তু আমাদের দলের অঙ্গিকার আলাদা। আমরা সর্বস্তরের মানুষের অধিকার আদায়ের জন্য রাজনীতি করছি।

আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, বিএফইউজে এর সাবেক সভাপতি রুহুল আমীন গাজী, কবি আবদুল হাই, ড. দিলারা চৌধুরী, অধ্যক্ষ সেলিম ভূইয়া, রাশেদ খান, ফারুক হাসান প্রমুখ।

spot_img
spot_img

সর্বশেষ