বুধবার, আগস্ট ১৭, ২০২২

আয়াসোফিয়া জাদুঘর থেকে মসজিদে রূপান্তরের দ্বিতীয় বার্ষিকী আজ

ঐতাইহাসিক আয়াসোফিয়াকে পুনরায় মসজিদে রূপান্তরিত করার বর্ষপূর্তি আজ। ২০২০ সালের ২৪ জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে জুমআর নামাজের মাধ্যমে আয়া সোফিয়াকে পুনরায় মসজিদে রূপান্তর করা হয়।

২০২০ সালের ১০ জুলাই তুরস্কের শীর্ষ আদালত আদালত ১৯৩৪ সালে জারিকৃত ফরমান বাতিল ঘোষণা করে আয়াসোফিয়াকে মসজিদে রূপান্তরের পক্ষে রায় দেয়।

এই রায়ে ১৯৩৪ সালের ক্ষমতাসীন তুর্কী সরকারের বিতর্কিত ফরমান (আয়াসোফিয়াকে মসজিদ থেকে জাদুঘরে রূপান্তরিত করণ) বাতিল বলে গণ্য করা হয়।

ঐতিহাসিক আয়াসোফিয়াকে পুনরায় জামে মসজিদ হিসেবে রূপান্তরে সফলতা অর্জন করে চৌকস মুসলিম নেতা এরদোগানের নেতৃত্বাধীন বর্তমান তুরস্ক। ২০২০ সালের ২৪ জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে জুমআর নামাজ আদায়ের মধ্য দিয়ে আয়াসোফিয়াকে পুনরায় মসজিদে রূপান্তর করে সর্বশেষ ইসলামী খেলাফতের ঝাণ্ডাধারী দেশটি।

সাদা চোখে একটি ঐতিহাসিক স্থাপনাকে নিছক মসজিদে রূপান্তর বলে মনে হলেও আদতে মুসলিম বিশ্বের প্রভাবশালী এই নেতাকে পাশ কাটাতে হয়েছে বিশ্বনেতাদের চোখ রাঙানি। লড়তে হয়েছে আইনী লড়াইও!

আইনি প্রক্রিয়ার দীর্ঘ চড়াই-উতরাই শেষ হয় ২০২০ সালের ১০ জুলাই। তুরস্কের শীর্ষ আদালত এইদিনে তাদের জনক ও প্রেসিডেন্ট মুস্তফা কামাল আতাতুর্কের জারিকৃত ফরমান বাতিল ঘোষণা করে এবং আয়াসোফিয়াকে পুনরায় মসজিদে রূপান্তরের পক্ষে রায় দেয়।

এই রায়ে ১৯৩৪ সালের ক্ষমতাসীন তুর্কী সরকারের বিতর্কিত ফরমান, আয়াসোফিয়াকে মসজিদ থেকে জাদুঘরে রূপান্তরিত করণ বাতিল বলে গণ্য করা হয়।

উল্লেখ্য, বিশ্বের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা আয়াসোফিয়া ষষ্ঠ শতাব্দীতে বাইজেন্টাইন সাম্রাজ্যের রাজত্বকালে নির্মিত হয়েছিল।

সুলতান মুহাম্মাদ আল ফাতিহ কর্তৃক কনস্টান্টিনোপল বিজয়ের পূর্বে ৯৬১ বছর পর্যন্ত গ্রীক অর্থোডক্স চার্চের মূলকেন্দ্র বা ক্যাথিড্রাল হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছিলো। তৎকালীন বাইজেন্টাইনরা সেখান থেকেই মুসলমানদের বিরুদ্ধে নানান ষড়যন্ত্র ও কূটচাল চালাতো।

তবে ১৪৫৩ সালে সুলতান মুহাম্মাদ আল ফাতিহের নেতৃত্বে কনস্টান্টিনোপল বা ইস্তাম্বুল বিজয় হলে একটি রাজকীয় মসজিদে রূপান্তরিত হয়।

ইস্তাম্বুল বিজয়ের পর সুলতান মুহাম্মাদ আল ফাতিহ এটিকে মসজিদ হিসেবে ওয়াকফ করে দিয়েছিলেন। ওয়াকফের পর থেকে প্রায় ৫০০ বছর পর্যন্ত মসজিদ হিসেবে ব্যবহৃত হতে থাকে হাজার বছরের পুরোনো ও বহু উত্থান-পতনের সাক্ষী এই ঐতিহাসিক স্থাপনাটি।

কিন্তু আধুনিক তুরস্কের স্থপতি খ্যাত কামাল আতাতুর্কের শাসনামলে ১৯৩৪ সনে জাদুঘরে রূপান্তরিত করা হয় ধর্মীয় গুরুত্ববহ ঐতিহাসিক আয়াসোফিয়াকে।

মসজিদ হিসেবে পুনরায় বৈধতা পাওয়ার আগ পর্যন্ত তা ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ও তুরস্কের জাদুঘর হিসেবে দীর্ঘ ৮৬ বছর পর্যন্ত ব্যবহৃত হয়ে আসছিলো আয়াসোফিয়া, যা কি না এক সময় মসজিদের পাশাপাশি উসমানী খেলাফতের প্রধান কার্যালয় হিসেবেও ব্যবহৃত হয়েছিলো।

spot_img
spot_img

সর্বশেষ

spot_img