রবিবার, জুলাই ২৫, ২০২১

আল কোরআনের মেহনতে নিজেকে সম্পৃক্ত করুন: মাওলানা সালাহউদ্দিন জাহাঙ্গীর

পবিত্র কোরআন বিশ্বের সর্বাধিক পঠিত গ্রন্থ। কেউ নামাজে পাঠ করেন, কেউ তিলাওয়াত করেন, কেউ শিক্ষা দান করেন, কেউ অধ্যয়ন করেন, কেউ এর দাওয়াত ও প্রচারের কাজ করেন, কেউ গবেষণা করেন।

পবিত্র কোরআনের মতো এত অধিক পঠিত গ্রন্থ পৃথিবীতে আর একটিও নেই। পৃথিবীতে যত ধর্মের ধর্মগ্রন্থ আছে, সেসব ধর্মের সব অনুসারীর জন্য ধর্মগ্রন্থ পড়া জরুরি নয়।

কোনো কোনো ধর্ম তো সাধারণ অনুসারীদের জন্য ধর্মগ্রন্থ পড়া এবং স্পর্শ করাও নিষিদ্ধ। সেসব ধর্মে ধর্মগ্রন্থ চর্চার অধিকার কেবল বিশেষ শ্রেণীর পুরোহিতদের জন্য সংরক্ষিত।

ইসলামের অবস্থান এর সম্পূর্ণ ভিন্ন। ইসলাম প্রচলিত অর্থে কোনো ধর্ম নয় বরং ইসলাম মানুষের জন্য পূর্ণাঙ্গ জীবনব্যবস্থা এবং আল্লাহ প্রদত্ত জীবনব্যবস্থা।

এ জীবনব্যবস্থার মূল উৎস হলো- কোরআনে কারিম। ইসলামে সর্বোচ্চ নেতৃবৃন্দ থেকে নিয়ে একজন সাধারণ মুসলিম পর্যন্ত সবার জন্য ইসলামের বিধান সমানভাবে প্রযোজ্য এবং সমানভাবে অনুসরণীয়। সে জন্য ইসলাম তার মূল উৎস কোরআনকে বিশেষ এবং নির্বিশেষে সব মুসলিমের জন্য অবশ্য পাঠ্য করে দিয়েছে। এটি অমুসলিমদেরও পাঠ্য।

তাই পবিত্র কোরআন অবতীর্ণের সূচনালগ্ন থেকে সর্বযুগেই একেবারে সাধারণভাবে মুসলিমরা কোরআন শিখছেন, কোরআন পড়ছেন, কোরআন তিলাওয়াত করছেন অবিরত।

প্রতিটি যুগে কোরআন হিফজ করে স্মৃতিতে ধারণ করছে অসংখ্য মানবসন্তান। সারা বিশ্বে তারা কোরআনের পাঠ শিখছে ও শিখাচ্ছে।

কোরআনের এ আওয়াজকে বেগবান করা ও সহি শুদ্ধ ও তার পূর্ণাঙ্গ হক আদায় করে পড়ার ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যেই আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সংস্থা বাংলাদেশ কাজ করে যাচ্ছে সেইসাথে প্রতি বছর নিয়মিত আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সম্মেলন এবং প্রতিযোগিতা আয়োজন করে থাকে। কোরআনের প্রশিক্ষণ ও মাহফিলের আয়োজন করে থাকে।

কোরআনে কারিমের এই ব্যাপক পাঠ এক মহাবিস্ময়। মানবহৃদয় বিমুগ্ধ করা এক বিস্ময়কর সিঁড়ি। আমাদের আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সংস্থা বাংলাদেশ কোরআনের প্রতিটি ক্ষেত্রে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে আলহামদুলিল্লাহ, আমি সবাইকে আহবান করব কোরআনের এই মহৎ কাজে নিজেকে সম্পৃক্ত করুন বিশ্বময় কোরআনের আওয়াজকে আরো উচ্চকিত করতে দায়িত্ব পালন করুন। আল্লাহ আমাদের সবাইকে তৌফিক দান করুন। আমিন।

সহ-সভাপতি : আন্তর্জাতিক ক্বিরাত সংস্থা বাংলাদেশ

spot_imgspot_img

আরও