Warning: sprintf(): Too few arguments in /home/insaf24net/public_html/wp-content/themes/infinity-news/inc/breadcrumbs.php on line 252

করোনায় কাজের চাপের মধ্যেও অফিসে বসে কুরআন তিলাওয়াত করছেন এরদোগান

ইনসাফ টোয়েন্টিফোর ডটকম | নাহিয়ান হাসান


পবিত্র রমজানে খতম দেওয়ার উদ্দেশ্যে তুর্কী প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগানের কোরআন তেলাওয়াতের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে তুমুল আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে তুর্কী প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগানের ঘুরে বেড়ানো একটি ভিডিও ক্লিপ নিয়ে সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারীরা তুমুল আলাপ -আলোচনা করছেন। সেই ভিডিওতে দেখা যায়, তিনি পবিত্র রমজান মাসে খতম দেওয়ার জন্য বিশেষ রুটিনে কোরআন তেলাওয়াত করছেন।

তুর্কী প্রেসিডেন্টের ভিডিও ক্লিপটিতে দেখা যায়, তিনি একটি টেবিলের পিছনে বসে সুস্পষ্ট আওয়াজে মহাগ্রন্থ আল কোরআনের ২৫ পারাস্থ সূরায়ে শূরার কিছু আয়াত তেলাওয়াত করছেন। এতে করে তিনি তেলাওয়াতের মাধ্যমে খতম দেওয়ার ক্ষেত্রে কোরআনে কারীমের ছয় ভাগের পাঁচ ভাগে উপনীত হয়েছেন।

ভিডিও ক্লিপটিতে এরদোগানের সমর্থনে কুয়েতের প্রাক্তন জাতীয় সংসদ সদস্য একটি মন্তব্য করেন। মন্তব্যে তিনি বলেন, তার (এরদোগানের) আগে আমি শুধুমাত্র কুয়েতের বাদশা ও তার যুবরাজকে কুরআন তেলাওয়াত করতে দেখেছি। এছাড়া আর কোনো রাষ্ট্রপতিকে কোরআন তেলাওয়াত করতে দেখিনি। কুয়েতের বাদশা নিজ প্রাসাদে একটি মসজিদ নির্মাণ করেছিলেন যেখানে তিনি তার পরিবার ও প্রহরীদের নিয়ে ফরজ নামাজসহ অন্যান্য দৈনন্দিন আমলগুলো আদায় করতেন।

তিনি আরো বলেন, এই রীতির প্রচলন তার পূর্ববর্তী কুয়েতি বাদশা ও যুবরাজদের মাঝেও ছিল। তারাও তাদের ঘরের সামনে বিশালাকৃতির মসজিদ নির্মাণ করে ফরজ নামাজসহ দৈনন্দিন আমল সেখানে সম্পাদন করতেন। আর এরদোগানও তার দৈনন্দিন আমল ও রমজান কেন্দ্রিক কোরআন খতমকে আগলে রেখেছেন। আল্লাহ পাকও উনাকে আগলে রাখুন।

প্রায় সময়ই তুরষ্কের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে এরদোগানের ভিডিও ক্লিপ ছাড়া হয়। যেগুলোতে দেখা যায়, তিনি জুমা অথবা জামাতে নামাজ আদায়ের পর কোরআন তেলাওয়াত করছেন।

কিছু সমালোচক রয়েছেন যারা এই ভিডিওগুলি প্রকাশ করাকে ‘ধর্ম ব্যবসা’ নামে আখ্যায়িত করে থাকেন। তবে অধিকাংশ লোকজনই এই ভিডিওগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য প্রকাশকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও নিজেদের আনন্দ এবং সমর্থন প্রকাশ করেছেন।

কারণ টুইটার ব্যাবহার কারীদের ভাষ্যমতে, এরদোগান যা করেন বেশিরভাগ তুর্কি জনগণও তাই করে থাকেন।

টুইটার ব্যবহারকারীদের আরেকজন লিখেছেন, প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগানের কণ্ঠে মহাগ্রন্থ আল কোরআন তেলাওয়াতের ভিডিও প্রকাশের ব্যাপারে যারা সমালোচনা করে তারা জানে না যে আমরা এমন নেতৃত্ব পেয়ে কতটা খুশি যে নেতৃত্ব তুর্কী জনগণ, ধর্ম, ইতিহাস এবং সংস্কৃতির সাথে নিবিড়ভাবে জড়িত।

তিনি আরো উল্লেখ করেন, আমরা তার (এরদোগানের) পূর্বের প্রেসিডেন্টদেরকে দেখেছি তারা কিভাবে পবিত্র রমজান মাসের দিনগুলোতে উদরপূর্তি ও পানে মত্ত থাকতো। সুতরাং আমরা কেনই বা এই লোককে পেয়ে খুশি হবো না অথচ তিনি আমাদেরই একজন।

এই বছরের রমজানটি করোনার ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের ফলে ব্যতিক্রমী পরিস্থিতির শিকার। যার ফলে বিশ্বজুড়ে প্রায় সাড়ে চার মিলিয়নের মত লোক এই মহামারীতে আক্রান্ত হয়েছেন এবং প্রায় ৩ লাখ মৃত্যুবরণ করেছেন। তাছাড়াও বৈশ্বিক অর্থনীতিকে হুমকির মুখে ফেলেছে এই প্রাণঘাতী মহামারী করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *