ভারতে প্রতিমা বিসর্জনকে ঘিরে সংঘর্ষ: গুলিতে নিহত ১

ভারতের বিহারের মুঙ্গেরে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনের সময়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে অনুরাগ পোদ্দার (১৮) নামে এক যুবক নিহত ও কমপক্ষে ২০ জন আহত হওয়ায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছে রাজ্যের ক্ষমতাসীন জেডিইউ-হিন্দুত্বাদী বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট সরকার।

সোমবার (২৬ অক্টোবর) দিবাগত মধ্য রাতের ওই ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে বেধড়ক লাঠিচার্জ করার পাশপাশি গুলিবর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ অবশ্য গুলিবর্ষণের ঘটনার কথা অস্বীকার করেছে।

প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় মুখপাত্র রণদীপ সিং সূর্যেওয়ালা এক সংবাদ সম্মেলনে রাজ্যের ক্ষমতাসীন জেডিউ-বিজেপি জোট সরকারের সমালোচনা করে বলেন, ‘যারা এভাবে লাঠিচার্জ করে তাদের ক্ষমা করা যায় না।’ তিনি হাইকোর্টের বর্তমান বিচারপতির নেতৃত্বে ওই ঘটনার তদন্ত দাবি করেছেন। একইসঙ্গে অবিলম্বে পুলিশের এসপি ও কালেক্টরকে সাসপেন্ড করার দাবি তুলেছেন।

রণদীপ সিং সূর্যেওয়ালা বলেন, যেসব পুলিশ কর্মকর্তা পশুর চেয়েও নির্মমভাবে পিটিয়েছে তাঁদের সকলের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। এছাড়া রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। এজন্য দায়ী মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার ও উপ-মুখ্যমন্ত্রী সুশীল মোদি।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে প্রকাশ, একটি খোলা গাড়িতে প্রতিমা নিয়ে বেশ কিছু বাসিন্দা বিসর্জন দিতে যাচ্ছিলেন। পুলিশের সঙ্গে তাদের বচসা শুরু হয়। এ সময়ে ওই বিসর্জনের দল থেকে ইট-পাটকেল ছোড়া হয় বলে অভিযোগ। এরফলে পুলিশের সঙ্গে ব্যাপক গোলযোগ বেধে যায়। ওই সময়েই গুলি চলে বলে অভিযোগ। এরফলে ঘটনাস্থলে এক যুবকের মৃত্যু হয়। পুলিশ ওই বিসর্জনের গাড়ির সঙ্গে থাকা নারী-পুরুষকে নির্বিচারে বেধড়ক পেটাতে শুরু করে। এ সংক্রান্ত এক ভিডিও চিত্র ভাইরাল হয়েছে। ওই ঘটনায় পুলিশ গুলি চালিয়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *