শুক্রবার, জুন ২৫, ২০২১

ইসলাম বিদ্বেষী মন্তব্যের পর অপহরণের নাটক সাজাতে লুকিয়ে ছিলেন তিথি সরকার

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইসলাম ধর্ম অবমাননা করে উসকানিমূলক পোস্ট দেয়ার অভিযোগে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বহিষ্কৃত ও নিখোঁজ শিক্ষার্থী তিথি সরকারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)।

পরিবার থানায় জিডি করলেও পুলিশের দাবি অপহরণের নাটক সাজাতে আত্মগোপনে ছিলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মালিবাগের সিআইডির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলেন এসব তথ্য জানান সিআইডির সাইবার পুলিশ সেন্টারের উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) জামিল আহমদ।

তিনি জানান, প্রেমিক শিপলু মল্লিকের সাথে ৯ অক্টোবর বাগেরহাট গিয়ে স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে থেকে বিয়ে করেন তিথি। অন্যের উপর দায় চাপিয়ে অপহরণের নাটক সাজাতেই এমণ ঘটনা ঘটিয়েছেন তিনি। তার ধারণা ছিল এভাবে গোপনে থেকে অপহরণের দ্বায়ভার অন্যর ওপর চাপিয়ে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত আনার ঘটনা থেকে তিনি রেহাই পাবেন এবং ঘটনাপ্রবাহ অন্যদিকে ধাবিত হবে।

শিপলু মল্লিকের দূর সম্পর্কের চাচার নরসিংদীর বাসা থেকে তিথিকে গ্রেপ্তার করা হয়। একই দিনে স্বামী শিপলুকে গুলিস্তানের কাপ্তান বাজার থেকে আটক করে পুলিশ।

ডিআইজি জামিল জানান, দূর সম্পর্কের চাচা দেবাশীষের বাসায় অবস্থানকালীন সিআইডির সাইবার দুটি টিম তাদের অবস্থান নিশ্চিত করে। বুধবার সেখান থেকে তিথিকে গ্রেপ্তার করে।

ডিআইজি আরও বলেন, অভিযুক্ত ছাত্রী ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে বিভিন্ন সময়ে ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্ট, মন্তব্য ও তথ্য শেয়ার করেছেন। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত সেই ছাত্রীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর মধ্যে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে একজন কারাগারে আছেন। তাদের বিরুদ্ধে পৃথক মামলাও দায়ের করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, বৃহস্পতিবার ওই ছাত্রীকে আদালতের মাধ্যমে এক দিনের রিমান্ডে নেয় পুলিশ। এর আগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে পল্টন থানায় সিআইডির করা মামলায় ওই ছাত্রী ও তার স্বামীর তিন দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত শুধু ওই ছাত্রীর একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

spot_imgspot_img

আরও