শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৩

জিল্লুর রহমানের বাড়িতে পুলিশ, ২২ বিশিষ্ট নাগরিকের উদ্বেগ

তথ্য সংগ্রহের নামে জনপ্রিয় টক শো ‘তৃতীয় মাত্রা’র উপস্থাপক জিল্লুর রহমানের পৈতৃক বাড়িতে পুলিশ গিয়ে ভয় দেখানোর যে অভিযোগ উঠেছে, তাতে উদ্বেগ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ২২ নাগরিক।

আজ রোববার গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে তারা বলেন, সাংবাদিক জিল্লুর রহমানের মতো একজন প্রথিতযশা ও সম্মানিত ব্যক্তির ক্ষেত্রে এমন ঘটনা অনভিপ্রেত ও উদ্বেগজনক।

ব্যক্তির জীবন, স্বাধীনতা, দেহ, সুনাম বা সম্পত্তি নিয়ে সাংবিধানিক অধিকারের কথা উল্লেখ করে তারা বলেন, জিল্লুর রহমানের এই অভিযোগ সংবিধানে উল্লিখিত রাষ্ট্র পরিচালনার মূলনীতি ও মৌলিক অধিকারগুলোর ব্যত্যয় হচ্ছে কি না এ নিয়ে জনমনে ভীতি ও শঙ্কা সৃষ্টি করেছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, বিজয়ের মাসে স্বাধীন বাংলাদেশের একজন নাগরিকের করা এমন অভিযোগ জনমনে এই আশঙ্কারও উদ্রেক করে যে, বাংলাদেশে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা ক্রমে সংকুচিত হচ্ছে কি না, যা সার্বিকভাবে নাগরিক অংশগ্রহণমূলক ও অধিকারভিত্তিক বাংলাদেশের টেকসই অগ্রগতিকে চরমভাবে বাধাগ্রস্ত করতে পারে।

বিবৃতিতে এ ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত ও ঘটনার সত্যতা সাপেক্ষে দায়ী ব্যক্তিদের আইন অনুযায়ী শাস্তি নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছেন ২২ নাগরিক।

২২ ডিসেম্বর এক ফেসবুক পোস্টে জিল্লুর রহমান বলেছেন, পুলিশ তথ্য সংগ্রহের জন্য শরীয়তপুরে তার পৈতৃক বাড়িতে গেছে। তিনি ঢাকায় থাকেন, তার একটি অফিসও রয়েছে। কোনো তথ্য দরকার হলে পুলিশ সদস্যরা সরাসরি তার কাছে যেতে পারতেন বা তাকে টেলিফোন করতে পারতেন। তারপরও তারা তার পৈতৃক বাড়িতে গেছেন। তাকে, তার পরিবার ও প্রতিবেশীদের ভয় দেখানোর জন্য এটা করা হয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

এ ঘটনায় উদ্বেগ ও নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি জানিয়ে বিবৃতি প্রদানকারী ২২ নাগরিক হলেন- অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. মাহবুব উল্লাহ, অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল, অধ্যাপক ড. আবদুল লতিফ মাসুম, অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ কামরুল আহসান, অধ্যাপক ড. ইফতিখারুল আলম মাসউদ, মানবাধিকার কর্মী ও আইন ও সালিশ কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক নুর খান লিটন, লেখক ও জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমদ, আইনজীবী ও মানবাধিকার কর্মী ব্যারিস্টার জ্যোতির্ময় বড়ুয়া, অধ্যাপক ড. শামীমা সুলতানা, পরিবেশ ও জলবায়ু নীতি বিশ্লেষক এম জাকির হোসেন খান, অধ্যাপক কামরুন্নেসা খন্দকার, কথাসাহিত্যিক ও সাংবাদিক মা‌‌হবুব মোর্শেদ, গবেষক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক ড. মারুফ মল্লিক, প্রকৌশলী ও টেকসই উন্নয়ন বিষয়ক লেখক ফয়েজ আহমদ তৈয়্যব, সায়েন্টিফিক বাংলাদেশ এর সম্পাদক ড. মুনির উদ্দিন আহমেদ, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ইউএসএ’র বাংলাদেশ ও পাকিস্তান বিষয়ক বিশেষজ্ঞ সুলতান মুহাম্মদ জাকারিয়া, ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের জ্যেষ্ঠ প্রভাষক মো. সাইমুম রেজা তালুকদার, নাগরিক বিকাশ ও কল্যাণের (নাবিক) আহ্বায়ক ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন খান, আইনজীবী অধিকার পরিষদের সমন্বয়ক ব্যারিস্টার জিশান মহসিন, নাগরিক পরিষদের আহ্বায়ক মোহাম্মদ শামসুদ্দিন, কথাসাহিত্যিক ও সাংবাদিক এহসান মাহমুদ এবং লেখক ও গবেষক জাকারিয়া পলাশ।

spot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_img