রবিবার, ডিসেম্বর ৫, ২০২১

কাশ্মীরে স্বায়ত্তশাসন পুনর্বহালের আগ পর্যন্ত নির্বাচনে যাবো না: মেহবুবা মুফতি

কাশ্মীর সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি বলেছেন, অঞ্চলটির স্থানীয় নির্বাচন বিজেপি নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকারের মুখোশ উন্মোচন করে দিয়েছে। আর প্রমাণ করে দিয়েছে মানুষ সংবিধানের ৩৭০ ধারা বা কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন বাতিলের কথা ভুলে যায়নি। ওই নির্বাচনে পিপলস অ্যালায়েন্স বিপুল জয় পেয়েছে। এই জোটে রয়েছেন মুফতির পিপলস ডেমোক্র্যাটিক পার্টি (পিডিপি) এবং ফারুক আব্দুল্লাহর ন্যাশনাল কংগ্রেস।

ভারতীয় এনডিটিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মেহবুবা মুফতি জানান স্বায়ত্তশাসন বাতিলের আগ পর্যন্ত তিনি নিজে কোনও নির্বাচনে লড়বেন না।

মেহবুবা মুফতি বলেছেন, নির্বাচনে যদি লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড রাখা হতো তাহলে বিজেপি’র অবস্থা আরও শোচনীয় হতো। তিনি বলেন, ‘মানুষ ব্যাপক হারে জোটের পক্ষে ভোট দিয়েছে। দিল্লির জন্য বোঝা স্পষ্ট যে মানুষ ভুলে যায়নি, ৩৭০ ধারা আমাদের হৃদয় ও মননে এখনও রয়েছে আর আমরা শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবো।’

সাত দলের পিপলস অ্যালায়েন্সের হয়ে ভবিষ্যতে নির্বাচনে অংশগ্রহণের সম্ভাবনা এবং ক্ষমতা ভাগাভাগি নিয়ে জোটসঙ্গীদের সঙ্গে বিরোধের আশঙ্কা সম্পর্কে মেহবুবা মুফতি বলেন,পার্লামেন্ট নির্বাচনের প্রশ্ন উঠলেও জম্মু ও কাশ্মিরের নিজস্ব সংবিধান এবং ৩৭০ ধারা পুনর্বহাল না হওয়া পর্যন্ত আমি নির্বাচনে লড়বো না।’

জোটসঙ্গীদের সঙ্গে বিরোধের আশঙ্কা সম্পর্কে কাশ্মিরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা প্রতিদ্বন্দ্বি হতে পারি, কিন্তু জম্মু ও কাশ্মিরের বৃহত্তর স্বার্থে আমরা ঐক্যবদ্ধ হতে পারি। শেষ পর্যন্ত আমরা কাশ্মিরি। আমরা কেবল নির্বাচন নিয়েই আলোচনা করি না বরং আমাদের হারানো সবকিছু ফিরে পাওয়া নিয়েও কথা বলি।’

তিনি আরও বলেন, ‘পার্লামেন্ট নির্বাচনের সময় আসলে আমরা একত্রে বসবো এবং আলোচনা করবো। তবে আমি প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকবো না।’

২০১৯ সালের আগস্টে জম্মু ও কাশ্মিরের স্বায়ত্তশাসন বাতিলের পর এবারই প্রথমবারের মতো অঞ্চলটিতে কোনও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ২৮ নভেম্বর থেকে ১৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত আট ধাপে জম্মু ও কাশ্মিরের ২৮০টি ডিডিসি আসনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। মূলত শান্তিপূর্ণ এই নির্বাচনে ৫৭ লাখ যোগ্য ভোটারের ৫১ শতাংশ তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে। ২০টি জেলার এসব নির্বাচনে ১৩টিতে জয় পেয়েছে পিপলস অ্যালায়েন্স। অন্যদিকে ছয়টি জেলায় জয় পেয়েছে বিজেপি।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img