এরদোগান পাত্তাই দিলেন না, তুরস্কে শুধু খ্রিস্টান নেতার সঙ্গে বৈঠক করলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আমেরিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও তার আসন্ন মধ্যপ্রাচ্য সফরে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট ও মুসলিম বিশ্বের প্রভাবশালী নেতা এরদোগানের সাক্ষাৎ চেয়ে প্রত্যাখ্যাত হয়েছেন।

ফ্রান্স এবং মধ্যপ্রাচ্যের ছয় দেশ সফরে আসছেন মাইক পম্পেও। পম্পেওর এ মধ্যপ্রাচ্য সফরে একটি অবৈধ ইহুদী বসতি পরিদর্শনের পরিকল্পনা রয়েছে, যার ঘোরবিরোধিতা করেছেন ফিলিস্তিনীরা।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এ সফরকে খুবই অনভিপ্রেত ও অগ্রহণযোগ্য বলে বর্ণনা করেছেন।

তবে তুরস্ক সফরে ইস্তানবুলভিত্তিক অর্থোডক্স খ্রিস্টান ধর্মীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। মঙ্গলবার তুরস্ক অবস্থানের সময় তিনি তুরস্কের কোনও সরকারি কর্মকর্তার সঙ্গে অফিসিয়াল বৈঠক করেননি। মার্কিন বার্তা সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস এ খবর জানিয়েছে।

ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যের সাতটি দেশ সফরে রয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তুরস্কে তিনি শুধু একুমেনিকাল প্যাট্রিয়াখ বার্থোলোমেউর সঙ্গে বৈঠক করেছেন। টুইটারে তিনি একটি ছবি প্রকাশ করেছেন, যাতে দেখা গেছে বার্থোলোমেউ তাকে স্বাগত জানাচ্ছেন।

পম্পেও আরও উল্লেখ করেছেন, আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যকার সংঘর্ষে মানবিক সংকট উত্তরণে বিশ্বকে নেতৃত্ব দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

তিনি বলেন, আজ আমরা নাগোরনো-কারাবাখ সংঘাতে আক্রান্তদের জন্য ত্রাণ সহযোগিতার ঘোষণা দিচ্ছি। আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানকে মিনস্ক গ্রুপের সঙ্গে পুনরায় আলোচনায় বসার জন্য আমরা আহ্বান জানাচ্ছি।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এই বৈঠকে ক্ষুব্ধ হয়েছে আঙ্কারা। তুর্কি সরকারের পক্ষ থেকে ওয়াশিংটনের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে মানবাধিকার লঙ্ঘনের বিষয়ে মনোযোগ দিতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *