বুধবার, জানুয়ারি ১৯, ২০২২

অক্সফোর্ডের টিকার তথ্য লুকানোর অভিযোগ

প্রায় দেড় হাজার স্বেচ্ছাসেবককে দেওয়া হয়েছিল অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির উদ্ভাবিত করোনা ভ্যাকসিনের ভুল ডোজ। শুধু তাই নয়, ভুলের কথা জানার পরও তা স্বীকার করা হয়নি। এর ফলে স্বেচ্ছাসেবকদের ক্ষতির আশঙ্কা কতটুকু, তাও জানায়নি অক্সফোর্ড।

সোমবার (১ ফেব্রুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরেছে রয়টার্স।

সেখানে বলা হয়েছে, ভুলের কথা স্বীকার করার বদলে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের বিভিন্ন ডোজে ভ্যাকসিন কীভাবে কাজ করে তা শেখার সুযোগ হিসেবে ৪ জুন একটি চিঠিতে ডোজ নিয়ে একটি প্রেজেন্টেশন দেওয়া হয়েছিল। এই চিঠি প্রধান তদন্তকারী, অক্সফোর্ডের অধ্যাপক অ্যান্ড্রু জে পোলার্ডের স্বাক্ষরিত ছিল।

এই ব্রিটিশ ভ্যাকসিন বর্তমানে ব্রিটেন, বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশে প্রয়োগ শুরু হয়েছে। মহামারির বিরুদ্ধে স্বল্প ব্যয়ের অস্ত্র হিসেবে এটি বিবেচিত হয়েছে। ফ্রিডম অফ ইনফরমেশনের অনুরোধের মাধ্যমে এই তথ্য সামনে আসে। বয়স্ক ব্যক্তিদের মধ্যে এর কার্যকারিতা সম্পর্কে তথ্যের অভাবের কারণে যাচাই করা হয়। তাতেই উঠে এসেছে ডোজ সম্পর্কিত এ অভিযোগ।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, এটি ইঙ্গিত দেয় যে, গবেষকরা পরীক্ষার স্বেচ্ছাসেবকদের সঙ্গে সৎ হতে পারেননি। অথচ ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালগুলোতে স্বেচ্ছাসেবকদের যে কোনও পরিবর্তন সম্পর্কে পুরোপুরি অবহিত করার কথা।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img