রবিবার, ডিসেম্বর ৫, ২০২১

ড. মুহাম্মাদ আল খুদরীসহ অন্যান্য ফিলিস্তিনিদের মুক্তি দিতে সৌদিকে হামাসের আহ্বান

ইনসাফ | নাহিয়ান হাসান

সৌদির কারাগারে বন্দী ফিলিস্তিনিদের অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার আহবান জানালেন ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাসের রাজনৈতিক ফ্রন্টের প্রধান ইসমাইল হানিয়াহ।

মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) এই খবরটি প্রকাশ করে টিআরটি এরাবিক।

খবরে বলা হয়, রোববার (২৭ ডিসেম্বর) হামাসের ৭ম রাজনৈতিক সম্মেলনের শেষদিনের বক্তৃতায় দলটির রাজনৈতিক ফ্রন্টের প্রধান ইসমাইল হানিয়া হারামাইন শরীফাইনের খাদেম ও সৌদির দায়িত্বশীল রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গের কাছে তাদের কারাগারে বন্দী থাকা ফিলিস্তিনিদের অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার দাবী করেছেন।

এসময় তিনি সৌদি সরকারকে লক্ষ্য করে বলেন, সৌদির কারাগারে তাদের আটক করে রাখা কোনোভাবেই বৈধ হতে পারে না। কেনোনা, তাদের সম্পৃক্ততা হলো হামাসের মতো বিপ্লবী সংগঠনের সাথে,যারা কিনা কোনো দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলায় না।

ড.খুদরীর ও তার সন্তানকে আটকের ঘটনায় তাদের মুক্তির দাবী জানিয়ে সর্বপ্রথম বিবৃতি দিয়েছিলো ২০১৯ সালের ৯ সেপ্টেম্বর।

বিবৃতিতে তারা বলেছিল, দীর্ঘ দুই দশক যাবত সৌদি সরকারের সাথে সম্পৃক্ততা থাকায় সৌদির কাছে ড.মুহাম্মাদ আল খুদরী দায়বদ্ধ ঠিকই কিন্তু অপরপক্ষে তিনি হামাস মুভমেন্টের উচ্চপদস্থ নেতাও বটে। কারণ দর্শানো ছাড়াই সৌদি সরকারের আচমকা বিতর্কিত অভিযানে অন্যান্য ফিলিস্তিনিদের সাথে তাকে বন্দী করা খুবই দুঃখজনক ব্যাপার।

অপরদিকে, জেনেভা ভিত্তিক একটি ইউরোপ-ভূমধ্যসাগরীয় অঞ্চলের মানবাধিকার মনিটরিং সংস্থা ২০১৯ সালের ৬ সেপ্টেম্বর এক বিবৃতিতে বলেছিল, সৌদি সরকার ড.খুদরী ও তার সন্তান সমেত মোট ৬০ জন ফিলিস্তিনিকে গুম করে ফেলেছে!

ড. মুহাম্মাদ আল খুদরী ও তার ছেলে হানি আল খুদরীকে সহ অন্যান্য ফিলিস্তিনিদের কেনো আটক করা হয়েছে তার কোনো ব্যাখ্যা না দিয়ে রিয়াদ এখনো নিজেদের অবস্থানকে স্পষ্ট রেখেছে।

তাছাড়া, ড.মুহাম্মাদ আল খুদরী ও তার সন্তান সহ বাকি ফিলিস্তিনিদের মুক্তি দেওয়ার ব্যাপারে হামাস যে দাবী করেছে সে ব্যাপারেও তাৎক্ষণিক কোনো জবান দিতে রাজি হয়নি সৌদি আরব।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img