বুধবার, জুন ১৯, ২০২৪

উস্কানীমূলক বক্তব্য না দিয়ে পাকিস্তানকে সমস্যা সমাধানের পরামর্শ দিলো আফগানিস্তান

নাহিয়ান হাসান ও সাজিদ আহসান


উস্কানিমূলক বক্তব্য না দিয়ে পাকিস্তানকে সমস্যা সমাধানের পরামর্শ দিয়েছে ইমারাতে ইসলামিয়া আফগানিস্তান।বৃহস্পতিবার পাক পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিদের সাথে বৈঠককালে আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাওলানা আমির খান মুত্তাকী এই পরামর্শ দেন।

বৈঠকে পাকিস্তানের প্রতিনিধি দলের প্রধান সুহাইল মাহমুদকে উদ্দেশ্য করে মাওলানা মুত্তাকী বলেন, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান ভ্রাতৃপ্রতিম দুটি প্রতিবেশী রাষ্ট্র। অধিকাংশ বিষয় দুই দেশের মধ্যে মিল রয়েছে। তাই দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতা ও ভালো সম্পর্ক থাকা জরুরী। সমস্যাগুলো আলোচনার মাধ্যমে নিরসন করা উচিৎ। হাতেগোনা কিছু সমস্যা দুই দেশের সম্পর্ক নষ্ট করার জন্য দায়ী। তাই পাকিস্তানের উচিত মিডিয়ায় উস্কানিমূলক বক্তব্য প্রচার করার পরিবর্তে করণীয় ও সমস্যার গোড়া খুঁজে বের করা।

আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাওলানা মুত্তাকী আরো বলেন, ক্ষমতা গ্রহণের পর পাকিস্তানের সাথে গত ২ বছরে উল্লেখযোগ্য হারে বাণিজ্যিক সম্পর্ক বৃদ্ধি করেছে তালেবান সরকার। আফগানিস্তানের ভৌগোলিক অবস্থান ও গুরুত্ব দুই দেশের জন্যই অপার সম্ভাবনার। পাকিস্তানের উচিত এর থেকে উপকৃত হওয়া।

এছাড়াও মাওলানা মুত্তাকী তালেবান নেতৃত্বাধীন সরকার কর্তৃক আফগান ভূখণ্ড কোনো দেশের বিরুদ্ধে ব্যবহার হতে না দেওয়ার প্রতিশ্রুতির বিষয়টি পুনরায় ব্যক্ত করেন।

এর আগে আফগান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সিরাজউদ্দিন হক্কানি পাকিস্তানে সাম্প্রতিক হামলার জন্য তালেবান সরকারকে দায়ী করার কঠোর সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেন, পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ সমস্যার কারণেই এসব ঘটনা ঘটেছে, তাই এসব সমস্যার সমাধান তাদেরই করা উচিৎ।

এছাড়াও পাকিস্তান যদি আফগানিস্তানের ওপর বল প্রয়োগ করে সমস্যার সমাধান করতে চায়, তাহলে উভয় দেশের নাগরিকরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে সতর্ক করে দেন আফগান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, “যদি তারা বল প্রয়োগ করে এই সমস্যার সমাধান করতে যায় তাহলে আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের মধ্যকার যে পারস্পরিক স্বার্থ বিদ্যমান রয়েছে তা বাস্তবায়ন ক্ষতির সম্মুখীন হবে।”

সিরাজউদ্দিন হক্কানি প্রতিশ্রুতি পূরণ না করায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় স্বীকৃতি না দিলেও ইমারাতে ইসলামীয়া আফগানিস্তান নিজেদের সমস্যার সমাধান করতে সক্ষম হয়েছে।

এদিকে আফগানিস্তানের ডেপুটি পররাষ্ট্রমন্ত্রী শের মুহাম্মাদ আব্বাস স্তানাকজাই বলেছেন, আমেরিকা আফগানিস্তানে দূতাবাস চালু না করায় অন্যান্য দেশ দূতাবাস খুলতে পারছে না। একই সাথে তিনি তালেবানের নেতৃত্বাধীন সরকার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পাওয়ার ক্ষেত্রে আমেরিকাই একমাত্র বাঁধা বলে মন্তব্য করেছেন।

শের মুহাম্মাদ স্তানাকজাই বলেন, “ইউরোপীয় বিভিন্ন দেশ বিশেষ করে ন্যাটোর অন্তর্ভুক্ত দেশগুলোর সঙ্গে আমাদের বৈঠক হয়েছে। তারা আমাদের কাছে একটিই দাবি করেছে, যদি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে আফগানিস্তানের সমস্যা সমাধান হয় তাহলে তারা আফগানিস্তানে আসতে প্রস্তুত আছে।”

সূত্র : বিএনএন, তোলো নিউজ ও আল ইমারাহ

spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_img
spot_img