মঙ্গলবার, মে ২১, ২০২৪

স্বাধীনতার ৫৩ বছরে ন্যায় বিচারের পরিবর্তে সর্বত্র বিচারহীনতা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে : মাওলানা ইউনুছ

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেছেন, স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রে সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায় বিচারের যে অঙ্গীকার ছিল তা আজও বাস্তবায়ন হয়নি। ১৯৭১ সালে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ যে ভিত্তির উপরে সংগঠিত হয়েছিল, সে সকল বিষয়গুলো আজ চরমভাবে উপেক্ষিত। সাম্যের বিপরীতে বেড়েছে বৈষম্য, দিন দিন ঘটছে মানবিকতার চরম অবক্ষয় এবং সামাজিক ন্যায় বিচারের পরিবর্তে সর্বত্র বিচারহীনতা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। স্বাধীনতার ঘোষনাপত্রে ধর্মপেক্ষতার কথা ছিল না। ’৭২ সালে সংবিধানে ধর্মপেক্ষতা সংযোজন করা হয়। ইসলামী শিক্ষাকে তুলে দেওয়ার চেষ্টায় ডারউইনের নাস্তিক্যবাদী মতবাদ নতুনভাবে সংযোজন করা হয়েছে। নিত্যপণ্যের বার বার দাম বৃদ্ধিতে জনজীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠছে।

আজ রবিবার (২৬ মার্চ) দুপুরে রাজধানীর পুরানা পল্টনস্থ আইএবি মিলনায়তনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ- ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আয়োজিত “মহান স্বাধীনতার ৫৩ বছর; প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি” শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মাওলানা ইউনুছ বলেন, আজ সারা দেশে দ্রব্যমূল্য লাগামহীনভাবে বেড়েই চলেছে। যেন বাজার ব্যবস্থাপনায় কারও কোন নিয়ন্ত্রণ নেই। যেখানে গোটা বিশ্বে পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে দ্রব্যমূল্য হ্রাস করা হয়, সেখানে বাংলাদেশের একদল অসাধু ব্যবসায়ী সরকারের অবৈধ মদদে সিন্ডিকেট তৈরি করে বাজারকে অস্থিতিশীল করে রাখে। অতিদ্রুত বাজার ব্যবস্থা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। নতুবা এই বাজারে আগুনেই একদিন স্বৈরশাসনের পতন হবে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মওলানা ইমতিয়াজ আলম-এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, প্রচার ও দাওয়াহ সম্পাদক মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ুম, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, জাতীয় শিক্ষক ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক নাসির উদ্দিন খান। ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সেক্রেটারি ডা. মোঃ শহিদুল ইসলাম, জয়েন্ট সেক্রেটারি মাওলানা আব্দুর
রাজ্জাক, অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি মোঃ নূরুজ্জামান সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা কে এম শরীয়াতুল্লাহ (সঞ্চালনা), দফতর সম্পাদক অধ্যাপক ফজলুল হক মৃধা, অর্থ ও প্রকাশনা সম্পাদক আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম খোকন, প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাওলানা নজরুল ইসলাম, ছাত্র ও যুব বিষয়ক সম্পাদক এইচ এম রফিকুল ইসলাম, কৃষি ও শ্রম বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা কামাল হোসেন, মহিলা ও পরিবার কল্যাণ সম্পাদক শেখ আবু তাহের, সংখ্যালঘু বিষয়ক সম্পাদক আলহাজ্ব ইসমাঈল হোসেন, সহ-প্রচার ও দাওয়াহ সম্পাদক নাজিম উদ্দীন গাজী, সদস্য গোলামুর রহমান আজম, প্রকৌশলী গোলাম মোস্তফা, প্রকৌশলী তাজওয়ার হাসান।মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেন, দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব বিরোধী একটি গোষ্ঠী সাংস্কৃতিক অগ্রযাত্রার নামে দেশটাকে নর্তকি ও নষ্টামির সাগরে ডুবিয়ে দিতে উঠে পড়ে লেগেছে। সম্প্রতি ভারতকে সিলেট ও চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারের প্রস্তাব দেশের স্বাধীনতাকে গোলামীর জিঞ্জিনের আবদ্ধ করার নতুনভাবে চক্রান্ত শুরু করেছে। তিনি ভারতের সাথে যে কোন চুক্তি করতে হলে
জনগণের সাথে আলোচনা করতে হবে।

spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_img
spot_img