সোমবার, জুন ২৪, ২০২৪

তুর্কী-পাক উচ্চ পর্যায়ের সেনাদের বৈঠকে প্রতিরক্ষা সহায়তা আরো জোরদার করার প্রতিজ্ঞা

ইনসাফ | নাহিয়ান হাসান

দু’দেশের মাঝে প্রতিরক্ষা সহায়তাকে আরো জোরদার করার দৃঢ় সংকল্প করেছে তুরস্ক-পাকিস্তান।

বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) এই সংক্রান্ত খবর প্রকাশ করে তুর্কী ও পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যমগুলো।

খবরে বলা হয়, উচ্চ পর্যায়ের সামরিক কর্মকর্তাদের দু’দিনের বৈঠক শেষে দু’দেশের প্রতিরক্ষা সহায়তা জোরদারকরণকে পুনঃনিশ্চিত করেছে ইসলামাবাদ-আঙ্কারা।

পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এই বিষয়ে তাদের বিবৃতিতে উল্লেখ করে যে, পাক-তুর্কীর উচ্চস্তরের সামরিক সংলাপ গ্রুপ, এইচএলএমডিজির ১৫ তম অধিবেশন শেষে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, সার্বিক নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠা ও সন্ত্রাসবাদ দমনে তুরস্ক ও পাকিস্তান তাদের প্রতিরক্ষা সহযোগিতা বাড়াতে একসঙ্গে কাজ করবে।

উক্ত বৈঠকে তুর্কী প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন জেনারেল স্টাফদের ডেপুটি চিফ, জেনারেল সেলজুক বায়রাক্তার ওগলু আর পাক প্রতিনিধিদের দলের নেতৃত্বে ছিলেন, পাক প্রতিরক্ষা সচিব লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অবসরপ্রাপ্ত) মিঁয়া মুহাম্মদ হেলাল হুসাইন।

এইচএলএমডিজির এই বৈঠকে যৌথভাবে সামরিক প্রশিক্ষণ,অস্ত্র উৎপাদন, সন্ত্রাসবাদ দমন, প্রতিরক্ষা শিল্পের উন্নয়ন ও শিক্ষা খাত সহ সবখাতে সবধরনের সহযোগিতার ব্যাপারে আলোচনা হয়।

এসময় মধ্যপ্রাচ্য, দক্ষিণ এশিয়া, এবং আফগানিস্তান সহ সব অঞ্চলে বিরাজমান পরিস্থিতি নিয়ে নিজেদের দৃষ্টিভঙ্গি উল্লেখপূর্বক মতবিনিময়ও করে উভয় দেশের সেনা প্রতিনিধিরা।

তাছাড়া, গত বছরের এপ্রিলে পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত এইচএলএমডিজির ১৪ তম বৈঠকে গৃহীত সিদ্ধান্তের এখন পর্যন্ত কতটুকু অগ্রগতি হয়েছে তা নিয়েও পর্যালোচনা করা হয়।

উল্লেখ্য, পাকিস্তান-তুরস্কের এইচএলএমডিজির ১৬ তম অধিবেশনটি ২০২১ সালে পাকিস্তানে অনুষ্ঠিত হবে বলে বিবৃতে জানানো হয়।

এইচএলএমডিজি হল পাকিস্তান ও তুরস্কের মধ্যে সর্বোচ্চ স্তরের একটি রাষ্ট্রীয় প্রাতিষ্ঠানিক প্রক্রিয়া যা প্রতিরক্ষা খাতে সহায়তার প্রসার ও সম্পর্কোন্নয়নের লক্ষ্যে চার্টার পলিসি ও কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বাধ্যবাধকতা তৈরি করে।

সূত্র: ইয়েনি শাফাক।

spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_img
spot_img