মঙ্গলবার, জুন ১৮, ২০২৪

ইসরাইলকে স্বীকৃতি না দেওয়ার কথা আমিরাতকে সাফ জবাব জানিয়ে দিয়েছে পাকিস্তান

ইনসাফ | নাহিয়ান হাসান

ফিলিস্তিন সংকট সমাধা হওয়ার আগ পর্যন্ত ইহুদিবাদী ইসরাইলকে স্বীকৃতি না দেওয়ার ব্যাপারে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে নিজেদের সাফ জবাব জানিয়ে দিয়েছে পাকিস্তান।

সোমবার (২১ ডিসেম্বর) পাকিস্তানের মুলতানে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মুহাম্মাদ কুরাইশী এই বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

ইহুদিবাদী ইসরাইলকে স্বীকৃতি না দেওয়ার ব্যাপারে আরব আমিরাতকে পাকিস্তানের সুস্পষ্ট অবস্থান নিশ্চিত করেছেন দাবি করে সংবাদ সম্মেলনে শাহ কুরাইশী বলেন, ফিলিস্তিন ইস্যুটির নিরপেক্ষ ও স্থায়ী সমাধান না হওয়া পর্যন্ত আমরা ইসরাইলের সাথে কোনো ধরনের সম্পর্ক স্থাপন করতে পারি না এবং করবোও না।

মূলত, কিছুদিন আগে শাহ কুরাইশীর আরব আমিরাত সফরকে অনেকে গোপনে ইহুদিবাদী ইসরাইলে পাকিস্তানের দূত প্রেরণ হিসেবে আখ্যায়িত করণকে এবং ইহুদিবাদী ইসরাইলের কিছু মিডিয়ায় প্রচার করে বেড়ানো তথ্যকে অস্বীকৃতি জানিয়ে নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করতেই এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে পাকিস্তান।

ইহুদিবাদী ইসরাইলকে স্বীকৃতি দিতে পাক মিত্র সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত,বাহরাইন সহ অন্যান্য উপসাগরীয় রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে পাকিস্তানের উপর কোনো চাপ আসছে কিনা সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের জবাবে কুরাইশী বলেন, প্রথমত, আমাদের উপর এই বিষয়ে কোনো চাপ নেই আর ভবিষ্যতে আসতেও পারবে না। দ্বিতীয়ত, আমাদের নির্দিষ্ট কিছু পলিসি আছে তাই আমরা নিজেদের স্বার্থকে সামনে রেখেই যেকোনো সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকি। আর স্বার্থের ক্ষেত্রে আমরা আমাদের সেই অবস্থানে অনড় থাকি।

তাছাড়া, আমার সম পদমর্যাদায় সমাসীন আমিরাতীকে ফিলিস্তিন ও কাশ্মীরের ব্যাপারে আমাদের আবেগের মাত্রা কতটা গভীর তা বুঝাতে সক্ষম হয়েছি।

তিনি বলেন, ওই বৈঠকে আমার সম পদমর্যাদাধারী আমিরাতী পররাষ্ট্রমন্ত্রীও বলেছিলেন যে, উল্লেখিত দুটি ইস্যুতে আমাদের অনুভূতি বুঝতে তিনি সক্ষম হয়েছেন।

পাকিস্তানের উপর চাপ না থাকার ব্যাপারে কুরাইশী সর্বশেষ প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের বক্তব্যকেও নিয়ে এসে বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রীও এতদিন যাবত বারবার স্পষ্টভাবে বলে এসেছেন যে, আমাদের উপর কোনো চাপ নেই।

বস্তুত, গত মাসে যখন ইমরান খান উল্লেখ করেছিলেন যে, ইহুদিবাদী ইসরাইলকে স্বীকৃতি দিতে পাকিস্তানের উপর কিছু বন্ধু রাষ্ট্রের চাপ আছে তখন থেকেই জল্পনাকল্পনা ও প্রশ্নবাণ ছুটে যেতে থাকে ইমরান খানের দিকে যে, ওই বন্ধু রাষ্ট্রগুলো কারা? মুসলিম রাষ্ট্র নাকি অমুসলিম রাষ্ট্র? এই বিষয়ে তিনি মুখ না খোলায় অনেকে ধারণা করে নিয়েছিল যে, পাক প্রধান সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের দিকেই বোধহয় ইঙ্গিত করেছেন!

সূত্র: আল জাজিরা।

spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_img
spot_img