বুধবার, জুন ১৯, ২০২৪

পশ্চিম তীরে অবৈধ বসতি স্থাপনকারী ইহুদীদের উপর নিষেধাজ্ঞা দিলো কানাডা

প্রথমবারের মতো ফিলিস্তিনের অধিকৃত পশ্চিম তীরে বসতি স্থাপনকারী ইহুদিবাদী সন্ত্রাসীদের অবৈধ রাষ্ট্র ইসরাইলী ইহুদীদের উপর নিষেধাজ্ঞা দিলো কানাডা।

বৃহস্পতিবার (১৬ মে) পশ্চিম তীরে সহিংসতার অভিযোগে এই নিষেধাজ্ঞা দেয় ট্রুডো সরকার। এর আগে আমেরিকা, ব্রিটেন, ফ্রান্স ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন একই ধরনের পদক্ষেপ নেয়।

এক বিবৃতিতে কানাডার পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেলানি জোলি বলেছেন, পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইলী বসতি স্থাপনকারীদের সহিংসতার মাত্রা বেড়ে যাওয়ার বিষয়টি গভীরভাবে উদ্বেগজনক। তাছাড়া ইসরাইলীদের এমন আচরণ এই অঞ্চলে শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য ঝুঁকিও তৈরি করেছে। এমন পরিস্থিতি আমরা স্পষ্ট করে জানিয়ে দিতে চাই যে, উগ্র বসতি স্থাপনকারীদের এমন আচরণ অগ্রহণযোগ্য ও এর পরিণত তাদের ভোগ করতে হবে।

জানা গেছে, নিষেধাজ্ঞার মধ্যে বসতি স্থাপনকারীদের সঙ্গে লেনদেন বন্ধসহ কানাডায় তাদের প্রবেশের উপর নিষেধাজ্ঞা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। যেসব ইসরাইলীদের ওপর এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে, তাদের মধ্যে ডেভিড চাই চাসদাই নামক এক ব্যক্তি রয়েছেন, যার বিরুদ্ধে পশ্চিম তীরের হুওয়ারাত শহরে দাঙ্গা উসকে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

এর আগে ডেভিড চাই চাসদাই সহ জেভি বার ইয়োসেফ, মোশে শারভিত ও ইয়িনন লেভি নামক ইসরাইলী নাগরিকের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল আমেরিকা। তাদের বিরুদ্ধে পশ্চিম তীরে বসবাসকারী ফিলিস্তিনিদের ওপর বারবার হয়রানি, হুমকি ও হামলার অভিযোগ রয়েছে। এর মধ্যে ডেভিড চাই চাসদাই ও ইয়িনন লেভির ওপরে এখনো মার্কিন নিষেধাজ্ঞা বলবৎ রয়েছে।

১৯৬৭ সালের আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের পর ইসরাইল-ফিলিস্তিনের সীমানা নির্ধারণ করা হয়। সে সময় ইসরায়েল প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল যে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে কোনো দখল কার্যক্রম চালানো হবে না। কিন্তু পরে আর সেই প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেনি ইহুদি রাষ্ট্রটি। প্রায় প্রতি বছরই একটু একটু করে ফিলিস্তিনি এই ভূখণ্ড নিজেদের দখলে নিয়ে নিচ্ছে ক্ষমতাবান ইসরাইলীরা।

বর্তমানে পশ্চিম তীরে ৩০ লাখ ফিলিস্তিনির বসবাস। অন্যদিকে, সেখানে জোরপূর্বক বসতি স্থাপন করেছে প্রায় ৪ লাখ ৯০ হাজার ইসরায়েলি, যা আন্তর্জাতিক আইনে অবৈধ বলে বিবেচিত।

সূত্র: দ্য টাইমস অব ইসরাইল

spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_img
spot_img