রবিবার, জুলাই ১৪, ২০২৪

কোটা আন্দোলনকারীদের যৌক্তিক দাবী মেনে নিন : মাওলানা ইউনুছ

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মহাসচিব মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনা ছিল সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা। ৫৬% কোটা পদ্ধতি চাকুরীর সম্পর্কিত বৈষম্য সৃষ্টি করছে যা মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধী। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশব্যাপী শিক্ষার্থী এ বৈষম্য দূরীকরণের জন্য কোটা আন্দোলন করে যাচ্ছে। আন্দোলনের মুখে ২০১৮ সালে যে কোটা সংস্কার হয়েছিল সেটা বাতিল করে সংকট সৃষ্টি করা হয়েছে, কার স্বার্থে? বাঙলা ব্লকেড কর্মসূচিতে শিক্ষার্থীদের স্ফূর্ত অংশগ্রহণ প্রমাণ করে সারাদেশের ছাত্রসমাজ অধিকার আদায়ে ঐক্যবদ্ধ। আদালতের দোহাই না দিয়ে সংকট নিরসনে সরকারকেই উদ্যোগ নিতে হবে।

আজ মঙ্গলবার (৯ জুলাই) বিকেলে পুরানা পল্টনস্থ কার্যালয়ে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা সভায় তিনি সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

ইসলামী আন্দোলনের মহাসচিব মহাসচিব ইউনুছ আহমাদ সম্পতি পিএসসির ব্যবস্থাপনায় রেলওয়েরর উপ-পরিচালক পদে নিয়োগ পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, খবরে প্রকাশ প্রায় ৩০টি বিসিএস পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস করা হয়েছে। এর দ্বারা প্রমাণিত হল সরকারের সকল সেক্টরে এ টু জেড দুর্নীতিতি নিমজ্জিত।

তিনি বলেন, সরকারি চাকুরীর সবচেয়ে বৃহৎ প্রতিষ্ঠান বিসিএস পরীক্ষার কোটি কোটি টাকার দুর্নীতি, প্রশ্নফাঁস, ৫৬% কোটা পদ্ধতির চেয়েও মারাত্মক দুশ্চিন্তার কারণ।

মাওলানা ইউনুছ আহমাদ বলেন, ভোটারবিহীন ডামি সরকার চাকুরীর সর্ব সেক্টরে বিনা প্রতিযোগিতায় দলীয় লোকদের নিয়োগের স্বপ্নে বিভোর। এ জন্য আওয়ামী লীগের এক উপদেষ্টা বলেছিলেন, ‘তোমরা ছাত্রলীগ কর, দেশের অস্তিত্ব স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সরকারের পদত্যাগ ও মধ্যবর্তী নির্বাচন এখন সময়ের দাবী’।

তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকদের জোর করে প্রত্যয় স্কীম বা পেনশন চাপিয়ে দেওয়ার সমালোচনা করে বলেন, সরকার দেউলিয়া হয়ে এখন সম্মানিত শিক্ষকদের উপর চড়াও হয়েছে। প্রত্যয় স্টীমকে ঐচ্ছিক ঘোষণা দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের ক্লাসে পাঠানোর ব্যবস্থা করার দাবী জানান।

তিনি ভারতের সঙ্গে স্যাটেলাইট চুক্তির মাধ্যমে জননিরাপত্তা বিঘ্নিত হওয়ার আশঙ্কার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ভারতের সঙ্গে স্পর্শকাতর তথ্য বিনিময়ের যে চুক্তি হয়েছে, সে সম্পর্ক জনগণকে অবহিত করতে হবে। বাংলাদেশ কারও পৈত্রিক সম্পত্তি নয়, দেশের স্বার্থরক্ষা হয়েছে কি না জনগণ জানতে চায়।’

সম্প্রতি কিছু পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘পুলিশ অ্যাসোসিয়েশনের মতো সংগঠন বিবৃতি দিয়ে দুর্নীতিবাজদের পক্ষ নেওয়ার বিষয়টি অনৈতিক।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, প্রেসিডিয়াম সদস্য আলহাজ খন্দকার গোলাম মাওলা, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, মুহাম্মদ আমিনুল ইসলাম, মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ, কেএম আতিকুর রহমান, আহমদ আবদুল কাইয়ূম, লোকমান হোসাইন জাফরী, হারুন অর রশিদ, এবিএম জাকারিয়া, শায়খুল হাদীস মকবুল হোসাইন, মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাকী, অ্যাডভোকেট হাফেজ হাছিবুল ইসলাম।

spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_img
spot_img