এএসপি আনিসুলকে হত্যা করা হয়েছে, বলছে পুলিশ

রাজধানীর আদাবরে মাইন্ড এইড হাসপাতালে কর্মীদের মারধরে জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার আনিসুল করিমের মৃত্যুর ঘটনাটি অনাকাঙ্ক্ষিত নয়, এটি হত্যাকাণ্ড বলে জানিয়েছেন তেজগাঁও বিভাগের উপপুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে ১২টায় শ্যামলীতে উপপুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, এএসপি আনিসুল করিমের মৃত্যু অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা নয়, এটি হত্যাকাণ্ড। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং হাসপাতালটি সিলগালা করা হবে।

গতকাল সোমবার সকালে আদাবরে মাইন্ড এইড হাসপাতালে ভর্তি হতে এসে হাসপাতাল কর্মীদের মারধরে মৃত্যু হয় বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের (বিএমপি) ট্রাফিক বিভাগের সহকারী কমিশনার মোহাম্মদ আনিসুল করিমের।

হাসপাতালের অ্যাগ্রেসিভ ম্যানেজমেন্ট কক্ষের ভাইরাল হওয়া সিসিটিভি ফুটেজ থেকে দেখা যায়, হাসপাতালে ৬-৭ কর্মী টেনে হিচড়ে ওই কক্ষের মধ্যে নিয়ে আসে আনিসুলকে। সেখানে তাকে কয়েকজন চেপে ধরে রাখতে দেখা যায়। একইসাথে কয়েকজন তাকে কনুই দিয়ে আঘাত করতে থাকেন। দীর্ঘক্ষণ নিস্তেজ হয়ে পড়ে থাকলেও আনিসুলের চিকিৎসার ব্যাপারে কেউ কোনো পদক্ষেপ নেননি। পরে তাকে শ্যামলী জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

এ ঘটনায় হাসপাতালের ব্যবস্থাপকসহ ১০ জনকে আটক করেছে আদাবর থানা পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *