শনিবার, জুলাই ২, ২০২২

তুরস্কের প্রখ্যাত আলেম শায়েখ মাহমুদ আফেন্দী ইন্তেকাল করেছেন

তৌফিক আল ফারিস


তুর্কিয়ের প্রখ্যাত আলেম ও আধ্যাত্মিক রাহবার শায়েখ মাহমুদ আফেন্দী ইন্তেকাল করেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

আজ বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) ইস্তাম্বুলে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৩ বছর।

কিডনি রোগে আক্রান্ত হয়ে বেশ কিছুদিন যাবৎ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন শায়েখ মাহমুদ আফেন্দী।

১৯২৯ সালে তুর্কিয়ের ট্রাবজন শহরের তাভশানলী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন শায়েখ মাহমুদ আফেন্দী।

তিনি হানাফী মাযহাবের অনুসারী ছিলেন। উলূমে হাদীস, ও উলূমে ফিকাহের উপর তার উচ্চতর ডিগ্রি ছিল। তিনি ‘রুহুল ফুরকান’ নামে তুর্কিয়ে ভাষায় কুরআন কারীমের আঠারো খণ্ডের তাফসীর রচনা করেছেন।

তিনি খানকার মাধ্যমে দ্বীনি খিদমত আঞ্জাম দিয়েছেন। ইউরোপসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তার অসংখ্য শিষ্য ও খানকাহ রয়েছে।

শায়েখ মাহমুদ আফেন্দী রহ. তুর্কিয়ের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগানের ধর্মীয় মুরুব্বী ছিলেন।

তিনি দারুল উলূম দেওবন্দ ও আকাবিরে দেওবন্দের আদর্শ অনুসরণ করতেন। দেওবন্দ মাদরাসার প্রতিষ্ঠাতা হুজ্জাতুল ইসলাম মাওলানা কাসেম নানুতবি রহ.-কে চৌদ্দশ শতাব্দীর মুজাদ্দিদ বলে অভিহিত করেছেন।

তুর্কিয়েতে দ্বীনি শিক্ষা প্রচার-প্রসারে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ শায়েখ মাহমুদ আফেন্দীকে “ইমাম কাসেম নানুতবি এওয়ার্ড” দিয়ে পুরস্কৃত করে দারুল উলুম দেওবন্দ।

২০১৩ সালে তুর্কিয়েতে অনুষ্ঠিত আলেম-ওলামাদের এক সম্মেলনে দারুল উলুম দেওবন্দের সাইয়েদ আরশাদ মাদানী বলেন, শাইখ মাহমুদ আফেন্দি হলেন তুর্কিয়ের কাসেম নানুতবি।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img