ইসরাইলের সঙ্গে যৌথ সামরিক মহড়ায় অংশ নেবে আমিরাত

গ্রিসে ইসরাইলের সঙ্গে যৌথ সামরিক মহড়ায় অংশ নেবে সংযুক্ত আরব আমিরাত। গত আগস্ট মাসে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক স্বাভাবিক হওয়ার পর এই প্রথম তারা প্রকাশ্য সামরিক সহযোগিতায় অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে।

শনিবার ইসরায়েলের সামরিক সূত্রগুলো এই খবর দিয়েছে।

সূত্রের বরাত দিয়ে ইসরাইলি দৈনিক মারিভ জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক সামরিক মহড়ার অংশ হিসেবে ইসরাইল ওই মহড়ায় যুক্ত হবে। যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, স্লোভাকিয়া, স্পেন ও সাইপ্রাসের যুদ্ধবিমানও এতে অংশ নেবে। তবে ঠিক কবে মহড়াটি অনুষ্ঠিত হবে তার সুনির্দিষ্ট তারিখ জানা যায়নি।

পত্রিকাটি বলছে, এর আগেও আরব আমিরাত ইসরাইলের সঙ্গে মহড়ায় যোগ দিয়েছে। কিন্তু এবারই তারা প্রকাশ্যে ইসরায়েলের সঙ্গে মহড়ায় অংশ নিচ্ছে।

ভূমধ্যসাগরে তেল ও গ্যাসের অনুসন্ধান নিয়ে তুরস্কের সঙ্গে তীব্র উত্তেজনার মধ্যেই এই মহড়ার আয়োজন করে গ্রিস।

উল্লেখ্য, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যস্থতায় ২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপন করে সংযুক্ত আরব আমিরাত। ওই চুক্তির পর আবু ধাবির হোটেলগুলোকে বাধ্যতামূলকভাবে ইহুদি খাবার রাখার নির্দেশ দেয় কর্তৃপক্ষ। ইসরায়েলের নাম উল্লেখ না করেই আমিরাতে ব্যবসায়ের ক্ষেত্রে বিদেশিদের শতভাগ মালিকানার বিধান করে কর্তৃপক্ষ। দুই দেশের বিমান যোগাযোগ চালুর পর আমিরাতে ইহুদি পর্যটকদের ঢল নামে।

ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় সর্বশেষ ১৩টি মুসলিম দেশের নাগরিকদের নতুন করে ভিসা দেওয়া বন্ধ করে দেয় আমিরাতি কর্তৃপক্ষ। ২০২০ সালের ১৮ নভেম্বর থেকে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হয়েছে। নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা দেশগুলো হচ্ছে তুরস্ক, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, লিবিয়া, ইয়েমেন, আলজেরিয়া, সোমালিয়া, কেনিয়া, ইরাক, লেবানন, তিউনিসিয়া, ইরান ও সিরিয়া। এর মধ্যেই এবার ইসরায়েলের সঙ্গে প্রকাশ্য সামরিক মহড়ায় অংশ নিতে যাচ্ছে দেশটি। সূত্র: পার্স টুডে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *