ফ্রান্সে মুসলিমবিদ্বেষী তৎপরতার নিন্দা জানিয়েছেন আল্লামা কাসেমী

জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ’র মহাসচিব আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী ফ্রান্সে মহানবী (সা.)এর অবমাননাকর কার্টুন প্রকাশ এবং দেশটির প্রেসিডেন্টে ম্যাক্রোঁ’র মুসলিমবিদ্বেষী তৎপরতার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছেন, ফ্রান্স শুধু মুসলিম উম্মাহর হৃদয়কেই ক্ষতবিক্ষত করছে না, বরং বিশ^শান্তি ও স্থিতিশীলতার জন্যও ভয়াবহ হুমকি তৈরি করছে।

আজ (২৫ অক্টোবর) এক বিবৃতিতে তিনি আরো বলেন, গত সপ্তাহে এক শিক্ষকের হত্যাকাণ্ডকে কেন্দ্র করে দেশটিতে পরিকল্পিতভাবে ইসলামবিদ্বেষ এবং মুসলমানদের জান-মাল ও সহায়-সম্পদের উপর হামলার ঘটনা ভয়াবহ আকারে বেড়ে গেছে। শার্লি এবদো ম্যাগাজিনে আবারো রাসূল (সা.)এর ব্যাঙ্গাত্মক কার্টুন প্রকাশ শুরু করে। নজিরবিহীনভাবে প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ এই কার্টুন প্রকাশের সমালোচনা করতে অস্বীকার এবং ইসলামপন্থীদের নির্মূল করার অঙ্গিকার করেছেন।

তিনি বলেন, শুধু এখানেই শেষ নয়, দু’টি বড় বড় সরকারি ভবনের দেওয়ালে ন্যাক্কারজনকভাবে মহানবী (সা.)এর ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন প্রদর্শনের সচিত্র খবরও আমরা পাচ্ছি। তাছাড়া ফ্রান্সে আগে থেকে মুসলিম নারীদের নিকাব নিষিদ্ধ করে মানবাধিকার হরণ ও ইসলামবিদ্বেষ চালিয়ে আসছে। ইতিমধ্যে ফ্রান্স সরকার ৬৮টি মসজিদ ও মাদ্রাসা বন্ধ করে দিয়েছে এবং আরও অসংখ্য মসজিদ-মাদ্রাসা বন্ধের তালিকায় আছে।

তিনি বলেন, পশ্চিমের দেশগুলোতে পরিকল্পিতভাবেই এমন ন্যাক্কারজনক ঘটনা কিছু দিন পর পর ঘটানো হয়ে থাকে। কিন্তু ইসলামবিদ্বেষের ঘটনায় ফ্রান্স ইউরোপের সকল দেশকে ছাড়িয়ে গেছে। এতে হয়তো এটাই উদ্দেশ্য, তারা যে কোনভাবে শান্তিপ্রিয় মুসলমানদেরকে বিক্ষুব্ধ করে তুলে চরমপন্থার দিকে ঠেলে দিতে চায়। যাতে করে মুসলমানদের বিরুদ্ধে আগ্রাসন চালানোর জন্য তারা অজুহাত খাড়া করতে পারে।
আল্লামা কাসেমী বলেন, এটা অত্যন্ত জঘন্য ও নোংরা অপকৌশল। আমি বুঝি না, তারা কি করে নিজেদেরকে সভ্য বলে দাবি করে। কোন ধর্ম ও ধর্মগ্রন্থ নিয়ে এমন বর্বরতা আইয়্যামে জাহিলিয়্যাতেও ছিল না। মুসলমানরা কখনোই এমন হীন কাজে জড়ায় না।

বিবৃতিতে জমিয়ত মহাসচিব ইসলামের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছড়ানোর বিরুদ্ধে দৃঢ় অবস্থান নিতে ওআইসি’সহ মুসলিমবিশে^র প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, সত্বর ফ্রান্সের এসব অপকর্মের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ, নিন্দা ও কূটনৈতিক চাপ প্রয়োগ করুন। প্রয়োজনে অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক হাতিয়ারও ব্যবহার করতে হবে। তিনি বিশ^ মুসলিমের প্রতি ফ্রান্সের পণ্যবয়কটের আহ্বান জানান। পাশাপাশি বাংলাদেশ সরকারের প্রতি ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠিয়ে কড়া প্রতিবাদ জানানোর দাবি জানান।

জাতিসংঘ’সহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন এবং বিশে^র সকল ধর্মমতের শান্তিকামী জনতার প্রতিও ফ্রান্সের সাম্প্রদায়িক ঘৃণাচারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী আহ্বান জানিয়ে বলেন, বিশ^শান্তিকে হুমকি মুক্ত রাখতে ফ্রান্সের সাম্প্রদায়িকতার লাগাম টেনে ধরা সকলের দায়িত্ব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *