কাশ্মীরে ভারতীয় বাহিনীর গুলিতে স্বাধীনতাকামী দল হিজবুল মুজাহিদীনের প্রধান নিহত

করোনা লকডাউনের মধ্যেও ভারতের নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যদের গুলিতে কাশ্মীরের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হিজবুল মুজাহিদীনের প্রধান কমান্ডার রিয়াজ নাইকু নিহত হয়েছেন।

বুধবার সকালের দিকে কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় ভারতীয় বাহিনীর গুলিতে হিজবুল মুজাহিদীনের প্রধানসহ অন্তত দু’জনের প্রাণহানি ঘটেছে।

এনডিটিভি বলছে, জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলার বেইঘপুরা এলাকায় সেনাবাহিনী এবং পুলিশের কথিত সন্ত্রাস-বিরোধী যৌথ অভিযানে নিহত হয়েছেন নাইকু।

গত কয়েকদিন ধরেই কাশ্মীরে নিরাপত্তাবাহিনীর সঙ্গে স্বাধীনতাকামী মুজাহিদ বাহিনীর সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ভারতীয় নিরাপত্তাবাহিনীর মেজর-কর্নেলসহ একাধিক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাসহ বেশ কয়েকজন নিহত হয়েছেন।

এই পরিস্থিতিতে কাশ্মীরে পৃথক তিনটি যৌথ অভিযান শুরু করেছে ভারতীয় সেনাবাহিনী।

বুধবার সকালের দিকে পুলওয়ামার প্যাম্পোর এলাকায় অন্য একটি অভিযানে আরও দুই স্বাধীনতাকামী নিহত হয়েছেন বলে জানানো হয়েছে ভারতীয় বাহিনীর পক্ষ থেকে।

পুলওয়ামা জেলার বেইঘপুরা এলাকায় হিজবুল মুজাহিদীনের প্রধান কমান্ডার রিয়াজ নাইকুর অবস্থান নিশ্চিত হওয়ার পর দেশটির সেনাবাহিনী যৌথ অভিযানে যায়। এ সময় কাশ্মীর উপত্যকার অন্তত ১০টি জেলায় মোবাইল ফোন নেটওয়ার্ক ও ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়।

এর আগে ভারতীয় নিরাপত্তা বাহিনী হিজবুল মুজাহিদীনের এই প্রধানের মাথার দাম ১২ লাখ রুপি নির্ধারণ করে।

হিজবুল প্রধানের দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর প্রধান টার্গেটে ছিলেন তিনি। জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের সাবেক মহাপরিচালক এসপি ভেইড বলেন, ২০১৬ সালের জুলাইয়ে এনকাউন্টারে হিজবুল মুজাহিদীনের প্রধান বুরহান ওয়ানির মৃত্যুর পর নাইকুকে মোস্ট ওয়ান্টেড ঘোষণা করা হয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *