ম্যাকরনের বিরুদ্ধে কোলকাতায় প্রতিবাদে উত্তাল মুসলিমরা; পুড়ল কুশপুতুল

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের রাজধানী কোলকাতায় ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে উত্তাল হয়ে উঠলেন মুসলিমরা।

বুধবার (৪ নভেম্বর) বিকেলে ‘সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন’-এর পক্ষ থেকে আয়োজিত ওই প্রতিবাদ সমাবেশে কয়েক হাজার মানুষ শামিল হয়েছিলেন।

ফ্রান্সে সম্প্রতি প্রিয় নবী মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শিত হওয়ায় প্রতিবাদী জনতা বুধবার ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের কুশপুতলে লাঠি ও জুতোপেটা ক্ষোভ প্রকাশ করেন। পরে তার কুশপুতুল পোড়ানো হয়। সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের বিভিন্ন বক্তা এ সময়ে ফ্রান্স সরকারকে হুঁশিয়ারি দেওয়ার পাশাপাশি কেন্দ্রীয় নরেন্দ্র মোদি সরকারের বিরুদ্ধেও ক্ষোভে ফেটে পড়েন। তারা ফ্রান্সের বিভিন্ন পণ্য সামগ্রী বয়কট করার আহ্বান জানান এবং ফ্রান্স ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন স্লোগানে সোচ্চার হন।

প্রতিবাদী জনতা বুধবার ‘মহানবী হজরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর অপমান আমরা মানব না’, ‘বিশ্বনবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর অপমান মানছি না মানব না’, ‘ফরাসি পণ্য বয়কট করো, ফ্রান্স সন্ত্রাসী রাষ্ট্র’ ইত্যাদি প্ল্যাকার্ড বহন করেন।

‘সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন’-এর সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মাদ কামরুজ্জামান তার বক্তব্যে বলেন, ‘প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম মদীনা সনদ তৈরি করেছিলেন। যেটা গোটা পৃথিবীর ইতিহাসে প্রথম সংবিধান। তিনি দেখিয়েছিলেন কীভাবে বিভিন্ন ধর্মের মানুষ একসঙ্গে বাস রতে হয়। নবীজি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম দেখিয়েছিলেন কীভাবে বিভিন্ন ধর্মের মানুষকে ধর্ম পালনের স্বাধীনতা দিতে হয়। আজকে মোদি সরকারকে বলব, শুধু চা বিক্রি করতে করতে প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসলে চলে না। একটু লেখাপড়াটাও শিখতে হয়, কাগজটাও পড়তে হয়!’

মুহাম্মাদ কামরুজ্জামান আরও বলেন, ‘মুসলিমরা প্রিয় রাসুলের সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর জন্য প্রয়োজনে ১৩০ কোটি মানুষ প্রাণ বিলিয়ে দেবে কিন্ত রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর অমর্যাদা বরদাশত করবে না।’ মুহামামদ কামরুজ্জামান এদিন কোলকাতার রাস্তায় মিছিল করতে না দেওয়ায় কোলকাতা পুলিশের বিরুদ্ধে অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

অন্যদিকে, সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের পক্ষ থেকে বুধবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘সম্প্রতি ফ্রান্সে আমাদের প্রাণপ্রিয় আদর্শ প্রিয় নবী মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর অবমাননাকর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন ও ফরাসি সরকার কর্তৃক তা সমর্থন এবং ওই প্ররোচনায় বিভ্রান্ত হয়ে পথভ্রষ্ট কিছু যুবকের সন্ত্রাসী আক্রমণের কঠোর ভাষায় তীব্র নিন্দা করছি। সন্ত্রাসী কাজকর্মকে কোনো যুক্তিতে ও অজুহাতে আমরা সমর্থন করি না। সব সহিংসতা সন্ত্রাস।’

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ‘সহিংসতা মুসলিম করলে সন্ত্রাস আর অমুসলিম করলে বন্দুকবাজ! অশ্বেতাঙ্গরা করলে সন্ত্রাস আর শ্বেতাঙ্গরা করলে উগ্রজাতীয়তাবাদী দ্বারা বিচ্ছিন্ন ঘটনা! বেসরকারি সংগঠন সহিংসতা করলে সন্ত্রাস আর সরকারি লাইসেন্সপ্রাপ্ত বন্দুকবাজ করলে শান্তি প্রতিষ্ঠা- তা হতে পারে না। আইনের অনুশাসন না মেনে প্রতিটি হত্যা সন্ত্রাস। সন্ত্রাসের সংজ্ঞা নির্দিষ্ট কোনো সরকার অথবা গণমাধ্যমের মালিক করতে পারে না। আমরা মনে করি, উগ্রজাতীয়তাবাদী হোক অথবা উগ্রমৌলবাদী সহিংসতা হোক তা অন্যদেরকে সন্ত্রস্ত করতে করা হয়। প্রতিটি সহিংসতা সন্ত্রাসী কাজ। আমরা প্রত্যেক সহিংসতা ও সন্ত্রাসী কাজকর্মের নিন্দা করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *