নোয়াখালীতে পিতার পরিকল্পনায় ছেলেকে পুড়িয়ে হত্যা করল মা ও বোন

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে মঈন উদ্দিন সাদ্দাম নামে এক যুবককে প্রকাশ্যে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার হয়েছেন মূল পরিকল্পনাকারী বাবা।

বুধবার (৪ নভেম্বর) মামলার অন্যতম আসামি ঘাতক বাবা মোস্তফা চৌধুরীকে গ্রেফতার করে সিআইডি। গ্রেফতার মোস্তফা উপজেলার কাশিপুর মধ্যপাড়ার মৃত রঙ্গু মিয়ার ছেলে।

বাবা মোস্তফা চৌধুরীর (৫৫) নির্দেশে ২০১৮ সালের ২৩ অক্টোবর সকাল সাড়ে ১০টায় সোনাইমুড়ী উপজেলার কাশিপুর মধ্যপাড়া গ্রামে মঈন উদ্দিন সাদ্দামকে (২৭) নিজ বাড়ির উঠানে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন বড় বোন কুলসুম আক্তার ধনি ও মা রায়হানা বেগম। এ সময় আর্তচিৎকারে এলাকাবাসী এসে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করেন। আগুনে সাদ্দামের শরীরের ৮০ শতাংশ পুড়ে যায়। ২০ দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে ওই বছরের ১৩ নভেম্বর চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাদ্দাম মৃত্যুবরণ করেন। এ ঘটনায় পরদিন সাদ্দামের স্ত্রী আসমা আক্তার বাদী হয়ে সোনাইমুড়ী থানায় তিনজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় প্রধান আসামি করা হয় সাদ্দামের বাবা, ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী মোস্তফা চৌধুরীকে।

এদিকে দুই বছরের বেশি সময় ধরে আসামি মোস্তফা চৌধুরীকে খুঁজছিল পুলিশ। বুধবার ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিআইডির একটি টিম তাকে আটক করে। সোনাইমুড়ী উপজেলার ছাতারপাইয়া এলাকা থেকে তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক মুহাম্মদ রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে পলাতক মোস্তফা চৌধুরীকে আটক করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *