বুধবার, মে ২৫, ২০২২

দেশের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে শীর্ষ আলেমদের বিবৃতি

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে গত ২৬ মার্চ বায়তুল মোকাররম, হাটহাজারী ও বি.বাড়িয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে হেফাজতের কর্মসূচি এবং সংগঠনটির নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের বর্তমান প্ররিস্থিতি নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন দেশের শীর্ষ আলেমগণ।

বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে তারা এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

বিবৃতিতে আলেমগণ বলেন, বিগত ২৬, ২৭ ও ২৮ মার্চ এর পরিস্থিতির পরবর্তী অবস্থা দেশবাসীর সামনে স্পষ্ট। দেশের আলেম-ওলামাদের বিরুদ্ধে যেভাবে মিথ্যাচার ও মানহানিকর আচরণ করা হচ্ছে, এতে মনে হচ্ছে- আলেম-ওলামাগণ কোনো ভিনদেশী নাগরিক। এ পরিস্থিতি চলতে থাকলে কেউ আল্লাহর পাকড়াও থেকে রেহাই পাবে না। নিরীহ মাদরাসার ছাত্র-শিক্ষকদের উপর অন্যায়ভাবে গুলি চালিয়ে শহীদ করে দেওয়া এবং শত শত নিরাপরাধ মানুষকে জীবনের তরে পঙ্গু করে দিয়ে আবার তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে গ্রেফতার ও হয়রানি করা হচ্ছে। শুধু তাই নয়, আমীরে হেফাজত আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে নতুন করে মিথ্যা হত্যা মামলায় জড়ানো হয়েছে। হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় সহকারী মহাসচিব মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী, আরেক সহকারী মহাসচিব মাওলানা সাখাওয়াত হোসাইন রাজি, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজীজুল হক ইসলামাবাদী, মাওলানা ইলিয়াছ হামিদী, মুফতী শরীফুল্লাহ ও মুফতী বশিরুল্লাহ, মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীসহ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে ৪ জন, ভোলায় ৭ জন, সিলেটে ৭ জন, গাজীপুরে ৪ জন, নরসিংদীতে ১ জনকে ডিবি অফিসে হয়রানি ও গ্রেফতার করে রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন করা হচ্ছে। আমরা তার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এহেন পরিস্থিতিতে ওলামা-মাশায়েখসহ দেশবাসী গভীরভাবে উদ্বিগ্ন ও উৎকণ্ঠিত। আল্লাহ পাক কোনো জালেমকে ছেড়ে দেন না। আল্লাহর গজব থেকে রক্ষা পেতে হলে এসব অমানবিক কর্মকান্ড বন্ধ করুন।

শীর্ষ আলেমগণ বলেন, বর্তমান সরকার দলীয় প্রশাসন ভিন্ন মতাবলম্বিদের জন্য দেশটাকে একটি কারাগারে পরিণত করে রেখেছে। কোনো সম্মানি ব্যক্তিদের ইজ্জত সম্মানের তোয়াক্কা করছে না। দেশের সাধারণ মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা নেই। এভাবে একটি সভ্য জাতি মান-সম্মান নিয়ে টিকে থাকতে পারে না। সুতরাং আমরা পরিষ্কার বলে দিতে চাই, এদেশের মানুষের আস্থার প্রতিক, আদর্শ ও শান্তিপ্রিয় সমাজ বিনির্মাণের চালিকা শক্তি ওলামায়ে কেরামের উপর জেল-জুলুম নির্যাতন বন্ধ করুন। মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করুন। অন্যায়ভাবে গ্রেফতারকৃতদের নি:শর্ত মুক্তি দিন। শত শত আহত রোগীদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করুন। নিহতদের পরিবারকে যথাযথ ক্ষতিপুরণ দেওয়ার ব্যবস্থা করুন। তাহলে দেশ জাতি ও সরকারের জন্য কল্যাণ বয়ে আনবে। অন্যথায় এই পবিত্র মাহে রমজানে মজলুমদের আহাজারীতে আল্লাহর আরশ কেঁপে উঠবে এবং আল্লাহর গজব থেকে কেউ রেহাই পাবেন না।

শীর্ষ ওলামাগণ আরো বলেন, পবিত্র মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষা ও এ মাসের অপরিসীম ফজীলত লাভের আশায় দেশ ও জনগনের কল্যাণ কামনায় মসজিদগুলো তারাবীহসহ সকল ইবাদতের জন্য উন্মুক্ত করে দিন, কুরআনে কারীমের তিলাওয়াতের জন্য মক্তব-হিফজখানাসমূহ খুলে দিন। সারা দেশে করোনা নামক মহামারী থেকে দেশ ও জাতিকে রক্ষার জন্য উপরোল্লিখিত দাবীগুলো মেনে নেওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি জোর দাবী জানাচ্ছি। আল্লাহ পাক করোনা নামক মহামারী থেকে দেশবাসীকে হেফাজত করুন।

বিবৃতিতে স্বাক্ষরকারী আলেমগণ হলেন, আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী, আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী, আল্লামা আতাউল্লাহ হাফিজ্জী, আল্লামা নূরুল ইসলাম, মধুপুর পীর মাওলানা আব্দুল হামিদ, মাওলানা ইয়াহইয়া হাটহাজারী, মাওলানা আবুল কালাম, মাওলানা উবায়দুল্লাহ ফারুক বারিধারা, মাওলানা আব্দুর রব ইউসুফী, মাওলানা মুফতী মোবরক উল্লাহ, মাওলানা সাজেদুর রহমান, মাওলানা হাফেজ তাজুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুল আউয়াল, মাওলানা সালাহ উদ্দীন নানুপুরী,  মাওলানা নুরুল ইসলাম খান দরগাহপুর মাদরাসা, মাওলানা মহিউল ইসলাম বুরহান (মুহতামিম রেঙ্গা মাদরাসা), মাওলানা মাহফুজুল হক, ড. আহমদ আব্দুল কাদের, এডভোকেট শাহীনুর পাশা চৌধুরী, মাওলানা জুনায়েদ আল হাবীব, মাওলানা ফজলুল করীম কাসেমী, মুফতী মনীর হোসাইন কাসেমী বারিধারা,

মাওলানা হাবীবুল্লাহ মিয়াজী, মাওলানা নাসীরুদ্দীন মুনীর, মাওলানা মীর ইদ্রিস, মাওলানা আহমদ আলী কাসেমী, মাওলানা জালালুদ্দীন আহমদ, মাওলানা আতাউল্লাহ আমিন, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস মানিকনগর, মাওলানা জসীম উদ্দীন,মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, মাওলানা মুছা বিন আজহার,মাওলানা ইউনুছ রংপুর, মাওলানা ইসমাইল নুরপুরী, মুফতী আব্দুর রহীম, মাওলানা মোহাম্মাদুল্লাহ জামী, মুফতী মাসউদুল করীম, মাওলানা যাকারিয়া নোমান ফয়যী ও মুফতী আজহারুল ইসলাম প্রমুখ।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img