বৃহস্পতিবার, মে ১৯, ২০২২

আমেরিকার সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তকে আফগানিস্তান সম্মান করে: ঘানি

ইনসাফ | নাহিয়ান হাসান


আমেরিকার সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্তকে আফগানিস্তান সম্মান করে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির মার্কিন মদদপুষ্ট সরকার প্রধান আশরাফ ঘানি।

বুধবার (১৪ এপ্রিল) আমেরিকার সাথে রাষ্ট্রীয় ফোনালাপ শেষে তিনি এই মন্তব্য করেন।

ফোনালাপ শেষে আশরাফ ঘানি বলেন, চলমান শান্তি প্রক্রিয়ার অংশ হিসাবে নিখুঁত পরিবর্তন সাধনে আফগানিস্তান তার ন্যাটো ও মার্কিন মিত্রদের সাথে কাজ করে যাবে।

আফগান নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা বাহিনী সম্পর্কে এক টুইট বার্তায় তিনি বলেন, আফগানিস্তান ও তার জনগণকে রক্ষায় আফগান নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা বাহিনী পরিপূর্ণরূপে সক্ষম। আর একাজটি তারা খুব ভালোভাবেই করে আসছে। তাই আফগানরা তাদের প্রতি চিরকাল কৃতজ্ঞ থাকবে।

অপরদিকে নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ১১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে পরিপূর্ণভাবে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন। যদিও তালেবানের সাথে স্বাক্ষরিত চুক্তি মোতাবেক ১ মে’র আগে আফগান থেকে সব মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের কথা বলা হয়েছিল।

জো বাইডেনের এই আনুষ্ঠানিক ঘোষণার পূর্বে আমেরিকার একজন রাষ্ট্রীয় কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে সাংবাদিকদের বলেছিলেন, প্রকৃতপক্ষে জো বাইডেন ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর ঘটে যাওয়া দুর্ঘটনার ২০তম বার্ষিকীর আগে আফগানিস্তানে মার্কিন সেনাদের সংখ্যা শূন্যের কোঠায় নিয়ে আসার ব্যাপারে খুবই কঠোর।

এছাড়াও তিনি বলেন, এই সিদ্ধান্ত শর্ত সাপেক্ষ নেওয়া হয়নি বরং চিরকাল আফগানিস্তানে অবস্থানের জন্য বিগত দুই দশক যাবত কৌশল অবলম্বনের ফলাফল বিবেচনায় নেওয়া প্রেসিডেন্টের সিদ্ধান্ত!

ফলাফল বিবেচনায় প্রেসিডেন্ট এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন যে, ১১ সেপ্টেম্বরের আগে আমেরিকা সম্পূর্ণভাবে তাদের সেনা প্রত্যাহার করে সেখান থেকে আমেরিকার উপস্থিতির অবসান ঘটাবে।

অপরদিকে, সমস্ত বিদেশি সেনা আফগানিস্তান ত্যাগ না করা পর্যন্ত আসন্ন ইস্তাম্বুল সম্মেলনে অংশগ্রহণ না করার কথা সাফ জানিয়ে দিয়েছে আফগানের তালেবান।

উল্লেখ্য, আফগানিস্তানের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়ার বহুল প্রতীক্ষিত সম্মেলনটি তুরস্কের মহানগরী ইস্তাম্বুলে আগামী ২৪ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

সূত্র: ইয়েনি শাফাক

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img