বুধবার, মে ২৫, ২০২২

ইসলাম বিদ্বেষীদের শাস্তি দিতে পশ্চিমাদেরকে হলোকাস্ট আইনের উদাহরণ দিলেন ইমরান খান

ইনসাফ | নাহিয়ান হাসান


মতপ্রকাশের স্বাধীনতার আড়ালে যারা ইসলাম ও নবী মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর অবমাননার মাধ্যমে অপরাধ করে যাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তির ব্যবস্থা নিতে পশ্চিমা দেশগুলোকে আহ্বান জানালেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ইসলাম বিদ্বেষীদের শাস্তির আওতায় আনতে তিনি পশ্চিমাদের কাছে হলোকাস্ট আইনের অধীনে শাস্তির কথা তুলে ধরে দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

শনিবার (১৭ এপ্রিল) পশ্চিমাদের উদ্দেশ্যে পাক প্রধানমন্ত্রী এই আহবান জানান।

ইমরান খান তার টুইট বার্তায় বলেন, ইহুদি গণহত্যা ও ইহুদিবাদের বিরুদ্ধে নেতিবাচক মন্তব্য (হলোকাস্ট) নিষিদ্ধকারী পশ্চিমা সরকারদের আমি আহবান করছি তারা যেনো ইচ্ছাকৃতভাবে যারা মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রতি চরম বিদ্বেষমূলক কথাবার্তা ছড়ায় ও আমাদের নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে কটূক্তি করে, তাদের শাস্তি দেওয়ার ক্ষেত্রে হলোকাস্ট অপরাধের শাস্তির মানদণ্ড বিবেচনায় শাস্তি কার্যকর করেন।

তাছাড়া, উগ্র পশ্চিমা ডানপন্থী রাজনীতিবিদসহ যে সকল পশ্চিমারা জেনে-বুঝেই বাকস্বাধীনতার আড়ালে ইসলাম বিরোধী বিদ্বেষ ছড়ায় তাদের নৈতিক বোধে কমতি এবং ১.৩ মিলিয়ন মুসলিমের কাছে ক্ষমা চাওয়ার সৎ সাহসের অভাব রয়েছে বলেও জানান তিনি।

বিশেষত পশ্চিমা বিশ্বে ক্রমাগত বেড়ে চলা ইসলাম বিদ্বেষের ব্যাপারে উদ্বেগ প্রকাশ করে অত্যন্ত জোরালোভাবে পশ্চিমা উগ্রদেরকে এবিষয়ে ক্ষমা চাওয়ার আহবান জানান পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

তিনি বলেন, আমাদের সর্বাধিক সম্মান ও ভালোবাসা আমাদের নবী হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর জন্য বরাদ্দ, যিনি আমাদের সকলের হৃদয়ের মণিকোঠায় বসবাস করেন। তার ব্যাপারে প্রদর্শিত সামান্যতম অপমান ও অবজ্ঞাও আমরা সহ্য করতে পারি না।

মূলত, নেদারল্যান্ডসের ‘ফর ফ্রিডম’ পার্টির চরম ইসলাম বিদ্বেষী রাজনৈতিক নেতা গীর্ট ওয়াইল্ডার্স রমজান মাস ও ইসলামকে নিয়ে তার ব্যক্তিগত টুইটার একাউন্টে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টিকারী ও ইসলাম অবমাননাকর নেতিবাচক একটি ভিডিও ক্লিপ আপলোড করার পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় পাক প্রধানমন্ত্রী নিজ টুইট বার্তায় এসব কথা বলেন।

জানা যায়, আজান ব্যাকগ্রাউন্ডেড ভিডিও ক্লিপটিতে দাবি করা হচ্ছিলো যে রমজানের সংস্কৃতি ও ইতিহাস,ডাচ সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য বিরোধী এবং তাতে ডাচদের কোনো ভবিষ্যত নেই। সুতরাং ইসলামকে (ইসলামাইজেশন) থামিয়ে দিন।
তার দাবি মতে, ইসলাম ডাচ জাতির অন্তর্গত কোনো বিষয় নয়।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে ইসলাম বিদ্বেষী ওয়াইল্ডার্স রাষ্ট্রীয়ভাবে হযরত মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এর ব্যাঙ্গাত্মক ক্যারিকেচার আঁকার একটি আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিল, তৎকালীন আন্তর্জাতিক মহল যার ব্যাপক প্রতিবাদ জানিয়েছিল।

সূত্র: টিআরটি এরাবিক

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img