শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য কাতারে সেনা মোতায়েন করছে তুরস্ক; কটাক্ষ আমিরাতের

কাতারে তুরস্কের সামরিক উপস্থিতির সমালোচনা করে সংযুক্ত আরব আমিরাত দাবি করে বলছে, তুর্কি ঘাঁটির জন্য মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি হয়েছে।

শনিবার (১১ অক্টোবর) আরব আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আনোয়ার গারগাশ তার টুইটার একাউন্টে দেওয়া এক পোস্টে এ দাবি করেন।

তারমতে, পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলে তুরস্কের সামরিক উপস্থিতি অনেকটা জরুরি অবস্থা জারির মতো। তুরস্ক মেরুকরণ জোরদার করেছে এবং এ অঞ্চলের দেশগুলোর স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব ও জনগণের স্বার্থকে বিবেচনায় নেয়নি বলেও তিনি কটাক্ষ করেছেন।

২০১৭ সালের জুন মাসে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, মিশর এবং বাহরাইন কাতারের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক অবরোধ আরোপ করার পর তুরস্ক কাতারের অন্যতম প্রধান সমর্থক এ পরিণত হয়েছে। সেই থেকে তুরস্ক কাতারকে সবদিক দিয়ে সমর্থন দিয়ে আসছে এবং মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি নিশ্চিত করতে দেশটিতে সেনা মোতায়েন করছে।

এদিকে, সৌদি আরবের ব্যবসায়ী প্রিন্স আব্দুর রহমান বিন মুস’আদ তুরস্ক থেকে যেকোন ধরনের পণ্য আমদানি বর্জন করার ডাক দিয়েছে। কাতারে মোতায়েন করা তুর্কি সেনারা পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলে স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠায় সাহায্য করছে বলে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান জানানোর পর সৌদি প্রিন্স তুরস্কের পণ্য বর্জনের আহ্বান জানায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *