হাটহাজারী মাদরাসার ছাত্র বিক্ষোভের নেপথ্য

সোমবার (১২ অক্টোবর) হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক মুফতী হারুন ইজহার চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা মীর ইদরীস নদভীসহ বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে আবারো উত্তাল হয়ে উঠেছিলো দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসা প্রাঙ্গণ।

জানা যায়, মুফতী হারুন ইজহার চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা মীর ইদরীস নদভীসহ বেশ কয়েকজন হেফাজত নেতা বিশিষ্ট লেখক ও গবেষক মুহাম্মাদ গোলাম রাব্বানী ইসলামাবাদী’র ফটিকছড়ির নাজিরহাটে অবস্থিত বাসায় যান ‘কওমী জগত ও এর অন্তর্নিহিত সামাজিক শক্তির খতিয়ান’ বইয়ের আগামী সংস্করণ নিয়ে আলাপের জন্য। খবর পেয়ে বিরোধপূর্ণ নাজিরহাট মাদরাসার বিতর্কিত মুহতামিম মাওলানা সলিমুল্লাহর অনুসারীরা গোলাম রাব্বানী ইসলামাবাদী’র বাসার সামনে বিক্ষোভ দেখায়। এবং পুলিশে খবর দিয়ে সেখানে ‘হরকতুল জেহাদের’ বৈঠক চলছে বলে অভিযোগ করে।

পরে পুলিশ এসে মুফতী হারুন ইজহার চৌধুরী ও কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা মীর ইদরীস নদভীসহ সেখানে উপস্থিতদের বিষয়টি স্পষ্ট হওয়ার জন্য থানায় নিয়ে যায়। শেষে ভুল বুঝাবুঝির অবসান হলে প্রশাসনের পক্ষে থেকে আটককৃতদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

অন্যদিকে হেফাজত নেতাদের গ্রেপ্তারের খবর ছড়িয়ে পড়লে হাটহাজারী মাদরাসার ছাত্ররা বিক্ষোভে নেমে পড়ে। পরে ছাত্রদের শান্ত করতে বিক্ষোভে বক্তব্য রাখেন মুফতী হারুন ইজহার ও মাওলামা মীর ইদরীস নদভী প্রমুখ। বর্তমানে মাদরাসার অবস্থা শান্ত রয়েছে বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *