বৃহস্পতিবার, মে ২৬, ২০২২

রণক্ষেত্র ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক

ভারতের হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকারের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে শুক্রবার বাদ জুম’আ জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকররম, হাটহাজারী ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আন্দোলনরত ছাত্র, মুসল্লীদের উপর পুলিশ-সরকারদলীয় নেতাকর্মীদের বর্বরোচিত হত্যা এবং হামলার প্রতিবাদে কেন্দ্র ঘোষিত সকাল-সন্ধ্যা শান্তিপূর্ণ হরতালকে কেন্দ্র করে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে হেফাজত কর্মী ও তাওহীদি জনতার সাথে পুলিশ, র্যাব ও বিজিবির দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে। এ ঘটনায় বিজিবি হেফাজত কর্মীদের লক্ষ করে গুলি ছুড়েছে বলে অভিযোগ করেছে হেফাজত ইসলাম। এতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাইনবোর্ড থেকে চিটাগাংরোড পর্যন্ত রণক্ষত্রে পরিণত হয়েছে।

রোববার (২৮ মার্চ) সকাল থেকে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচী পালনকালে হেফাজতকর্মীদের ওপর এ হামলা চালানো হলে পরিস্থিতি রণক্ষেত্রে পরিণত হয়।

জানা যায়, ৯টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাইনবোর্ড এলাকায় টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করে রাখে হেফাজত সমর্থকরা। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পুলিশ, র্যাব ও বিজিবি ধাওয়া দিয়ে হেফাজত কর্মীদের সরিয়ে দিলে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে সনারপাড় এলাকায় হেফাজতের আরেক গ্রুপ রাস্তা অবরোধ করে দেয়। এ সময় পুলিশ তাদের ওপর টিয়ারশেল, রাবার বুলেট ও ফাঁকা গুলি ছুড়লে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।

হেফাজতের দাবি বিজিবির গুলিতে তাদের মধ্যে একজন নিহত হয়েছেন।

হেফাজত কর্মীরা বলেন, আল্লাহ যারা আমার ভাইকে গুলি করে হত্যা করলো তাদের তুমি ধ্বংস করে দাও। পরে উত্তেজিত নেতাকর্মীরা বিজিপির ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে তাদের সামনে যায় এবং বলে বর্ডারে গুলি করতে পার না আমাদের ওপর কেন করো?

আরো সংবাদ

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img