পাকিস্তান ও কাশ্মীরীদের সন্ত্রাসী সাজাতে ভারতীয় অপচেষ্টার আরেকটি প্রমাণ এলো বিশ্ব দরবারে

ইনসাফ | নাহিয়ান হাসান


ভারতের রিপাবলিক টিভি এডিটর ইন চীফ ও সংবাদ উপস্থাপক অর্নব গোস্বামী এবং ভারতীয় ব্রডকাস্ট অডিয়েন্স রিসার্চ কাউন্সিলের সাবেক চীফ এক্সিকিউটিভ অফিসার পার্থ দাশ গুপ্তের মধ্যকার হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ফাঁসের বদৌলতে পাকিস্তান ও কাশ্মীরীদের সন্ত্রাসী সাজাতে ভারতীয় অপচেষ্টার আরেকটি প্রমাণ সামনে চলে এলো বিশ্ব দরবারে।

তাদের ফাঁস হওয়া চ্যাটে দেখা যায় যে, পুলাওয়ামার হত্যাকাণ্ড সম্পূর্ণ সাজানো একটি নাটক। নিজ সেনাদের হত্যার মাধ্যমে পাকিস্তানের ঘাড়ে তার দায় চাপিয়ে নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের লক্ষ্যে হিন্দুত্ববাদী বিজেপির মোদি সরকার এই চিত্রনাট্য সাজায়, যা সম্বন্ধে পূর্ব থেকেই অর্নব গোস্বামী ছিলেন পরিপূর্ণ ওয়াকিবহাল। শুধু তাই নয়, তথাকথিত বালাকোটের সন্ত্রাসী হামলা থেকে শুরু করে ভারতের সংবিধান থেকে কাশ্মীরিদের বিশেষ অধিকার সংক্রান্ত ৩৭০ ধারা বাতিল করার বিষয়টিও তার পূর্ব থেকে জানা।

নিজ টিভি চ্যানেলের টিআরপি বাড়াতে বিআরসির সাথে কাজ করে যাওয়া অর্নব গোস্বামী, কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসন ব্যবস্থা বিলুপ্তির আগে বিআরসি প্রধানকে বলেছিলেন, কাশ্মীরে ভয়ংকর ও অস্বাভাবিক কিছু ঘটতে চলেছে যাকে কেন্দ্র করে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বড় ধরণের কোনো অভিযান পরিচালনা করা হবে এবং বালাকোটের হামলার পর বলেছিলেন যে, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে আরো উপযুক্ত পদক্ষেপ নিবে মোদি সরকার।

ভারতের এই শীর্ষ দুজন মিডিয়া ব্যক্তিত্বের মধ্যকার হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ফাঁসের কারণে বিপাকে পরেছে দেশটির হিন্দুত্ববাদী মোদি সরকার ও তাদের সহযোগী উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠন আরএসএস।

নিজ সেনাদের হত্যা করে তার দোষ পাকিস্তান ও কাশ্মীরীদের উপর চাপানোর অপচেষ্টা সংক্রান্ত তথ্য ফাঁস হওয়ায় ভারত সহ বহির্বিশ্বে দেখা দিয়েছে ভারত বিরোধী ক্ষোভ ও নিন্দার ঝড়।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এই বিষয়ে তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়ে বলেছে, নির্বাচনে জিততেই হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকার ও তাদের দোসর আরএসএস পাকিস্তানের ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশ করে ফ্লাগ অপারেশনের মিথ্যা নাটক সাজায় এবং কট্টর জাতীয়তাবাদ ও দেশভক্তির নামে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে মিথ্যা রটায়।

হিন্দুত্ববাদী বিজেপি সরকারের নিকৃষ্টতর বিষয়াদিতে ভারতীয় মিডিয়ার যে গভীর সখ্যতা বিদ্যমান, সেটিও এই চ্যাট ফাঁসের বদৌলতে একেবারে সুস্পষ্ট বলে পাক-পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে।

তাছাড়া, মোদি সরকারের এধরণের কর্মকাণ্ডের ফলে আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা বিনষ্ট হচ্ছে উল্লেখ করে পাক পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ভারতের এই ন্যক্কারজনক কর্মকাণ্ডগুলোকে নোট করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ারও আহবান জানায়।

অপরদিকে ভারতের বিরোধী দল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক জিতেন্দ্র সিংহ বিজেপির প্রতি টিপ্পনী কেটে বলেন, অবস্থা দেখে মনে হচ্ছে অর্ণব কেবল সরকারের মুখপাত্রই নন,বরং কোনো দেশের সেনাপ্রধানও বটে, যিনি কিনা প্রতিরক্ষা স‌ংক্রান্ত গোপন তথ্যের ব্যাপারে পূর্ব থেকেই ওয়াকিবহাল!

এসময় তিনি পাকিস্তানের বালাকোটে ভারতীয় বিমান হামলার দিকে ইঙ্গিত করে বলেন,মোদির নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার কেনো পাকিস্তানে সামরিক অভিযান চালিয়েছিলো তা জনগণের কাছে এখন সুস্পষ্ট।

সূত্র: ডেইলি জাঙ্গ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *