বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ৬, ২০২২

মিশরে বিশ্বাসঘাতক সিসির কারাগারগুলোতে ভয়াবহ নৃশংসতার শিকার বন্দিরা

মিশরের স্বৈরশাসক ও বিশ্বাসঘাতক আব্দেল ফাত্তাহ আল সিসির কারাগুলোতে ২০১০ থেকে আজ অবধি বহু বন্দিকে অমানবিক নির্যাতন সইতে হচ্ছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টান্যাশনাল।

মানবাধিকার সংস্থাটির মতে, মুসলিম ব্রাদার হুডের নেতা-কর্মীসহ হাজার হাজার বন্দিকে কারাগারে খাবারের কষ্টে রাখা হয়েছে। বছরের পর বছর ধরে ছোট ছোট কারাগারে গাদাগাদি করে রাখায় মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে বন্দিরা। কারাগারগুলোতে নির্যাতনের ‘শোচনীয় পরিস্থিতি’বিরাজ করছে। ভয়াবহ নৃশংসতার শিকার হচ্ছেন বন্দিরা।

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) অ্যামনেস্টির মধ্য প্রাচ্যের ও উত্তর আফ্রিকার পরিচালক ফিলিপ লুথার এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানান।

বিবৃতিতে তিনি জানান, শুধু মাত্র সিসি সরকারের বিরোধিতায় করায় অন্ধকারাচ্ছন্ন কারাগারে ঠেলে দেওয়া হয় বহু মানুষকে। যেখানে কোনো বিশুদ্ধ বাতাস ঢোকার কোনো উপায় নেই। মাঝেমধ্যে বন্দিদের খাবারও দেওয়া হচ্ছে না। এদিকে করোনার সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ছে কারাগারে, মৃত্যুর মুখে বন্দিরা। কারা কর্মকর্তারা জনাকীর্ণ কারাগারে বন্দিদের খুবই দুর্দশায় রেখেছে।

সিসি সরকারের অধীনে মিশরের কারাগারের ভয়াবহ কষ্টে দিনপার করছেন বন্দিরা। কিন্তু এই মানবাধিকার সংস্থার প্রতিবেদন প্রত্যাখান করে পাল্টা বিবৃতি দিয়েছে বিশ্বাসঘাতক সিসির সরকার।

অ্যামনেস্টির তথ্যে, ২০১৯- ২০২০-এ ১০ বন্দির নির্মম মৃত্যু হয়েছে। মুক্তির পর নির্যাতনের ব্যাথা সইতে না পেরে আরও দুজনের মৃত্যু হয়। জাতিসংঘের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ১ লাখ ১৪ হাজার মিশরীয় কারাগারে বন্দি। এ বিষয়ে ২০২০ সালে স্বৈরশাসক সিসির সরকারকে বারবার অবগত করা হলেও কোনো ধরনের প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

spot_img
spot_img

সর্বশেষ