ড্রোন ব্যবহার করে ভয়াবহ হামলা চালাল তালেবান; ৪ সরকারি সেনার মৃত্যু

গত রোববার (১ নভেম্বর) আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলে এক তালেবান হামলায় অন্তত চারজন আফগান সরকারের নিরাপত্তা কর্মকর্তা নিহত হয়েছে। খুব সম্ভবত ড্রোনের মাধ্যমে এই হামলাটি চালানো হয়েছিল। সিনিয়র ও স্থানীয় আফগান কর্মকর্তারা এ তথ্য জানিয়েছেন। ১৯ বছর ধরে চলা যুদ্ধে তালেবান সম্ভবত এবারই প্রথম প্রকাশ্যে ড্রোনের ব্যবহার করল।

হামলায় টার্গেট করা হয় আফগান সরকারের কুন্দুজ প্রদেশের গভর্নরের কম্পাউন্ড। দোহায় তালেবান ও মার্কিন মদদপুষ্ট আফগান সরকারের মধ্যে শান্তি আলোচনা অব্যাহত থাকার মধ্যেই আফগানিস্তানের বেশির ভাগ এলাকার মতো এই প্রদেশেও তীব্র হামলা চলছে। ওই বিস্ফোরণে আরো অন্তত আটজন আহত হয়েছেন বলে স্থানীয় কর্মকর্তারা জানিয়েছে।

কুন্দুজের প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য গোলাম রাব্বানি রাব্বানি বলেন, কুন্দুজ গভর্নরের দেহরক্ষীরা গভর্নরের গেস্টহাউজে ভলিবল খেলার সময় তাদের ওপর ওই বিস্ফোরণটি ঘটে।

তিনি বলেন, এটি কোনো বিস্ফোরণ না ক্ষেপণাস্ত্র না ড্রোন হামলা, তা স্পষ্ট নয়।

কুন্দুজ থেকে আফগান পার্লামেন্টের সদস্য ফজল করিম আইমাক তার ফেসবুক পেইজে বলেন, এই ঘটনা নতুন ধরনের হামলা। তবে তা ড্রোনে পরিচালিত কিনা তা পরিষ্কার নয়।

এ ব্যাপারে কোনো মন্তব্য করেননি তালেবান মুখপাত্র।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে তালেবান ছোট ড্রোন সীমিত পরিসরে ব্যবহার করছে। কিন্তু মার্কিন কর্মকর্তারা বলছেন, আগেও তারা দূরনিয়ন্ত্রিত হামলা চালিয়েছে।

মে মাসেও একই ধরনের হামলা হয়েছিল কুন্দুজের গভর্নরের কম্পাউন্ডে। তাতে একজন নিহত হয়েছিলেন। ওই সময় গভর্নরের মুখপাত্র বলেছিলেন, একটি বিদায়ী পার্টিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়েছে।

রোববারের হামলাটি সশস্ত্র ড্রোনের হয়ে থাকলে তা আফগান, আমেরিকা, ন্যাটো বাহিনীর জন্য ব্যাপক ও ভয়াবহ পরিণাম ডেকে আনবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কুন্দুজের কর্মকর্তারা বলেন, সেখানকার আকাশে অনেক সময়ই তালেবান বাহিনীর নজরদারি ড্রোন দেখা যায়। মার্চে আফগান বাহিনী একটি ড্রোন ভূপাতিত করার দাবি করেছিল।

মার্কিন মদদপুষ্ট আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর বেশির ভাগ সদস্যের মনোবল ইতোমধ্যেই ধসে গেছে। তালেবান ও আমেরিকার মধ্যে চুক্তির আলোকে মার্কিন সৈন্যরা চলে যেতে থাকায় তালেবানকে মোকাবেলা করার সক্ষমতাও আফগান বাহিনীর হ্রাস পেয়েছে।

সূত্র: নিউ ইয়র্ক টাইমস

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *