শুক্রবার, জুন ২৫, ২০২১

চাচাকে বাবা বানিয়ে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা উত্তোলন করত জগেন্দ্র নাথ বর্মণ

চাচাকে বাবা বানিয়ে জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরি করে নিজের মাকে দিয়ে মুক্তিযোদ্ধা ভাতা তুলে আসছিলেন এক যুবক।এতোদিন ধরা না পড়লেও ভাইদের জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করতে গিয়ে বিষয়টি জানাজানি হয়। অতঃপর মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করে রাষ্ট্রকে ধোঁকা দেওয়ার অপরাধে ওই যুবককে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করে ভ্রাম্যমাণ আদালত

রোববার (০১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় ঠাকুরগাঁও জেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ে এ ঘটনায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। দণ্ডপ্রাপ্ত যুবকের নাম জগেন্দ্র নাথ বর্মণ (৩৩)। তিনি সদর উপজেলার রাজাগাঁও ইউনিয়নের উত্তর বঠিনা গ্রামের ধণিচরণ বর্মণের ছেলে। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ-আল-মামুন।

জানা যায়, সদর উপজেলার রাজাগাঁও ইউনিয়নের উত্তর বঠিনা গ্রামের ধণিচরণ বর্মণের ছেলে জগেন্দ্র নাথ বর্মণ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার হিসেবে সরকারি সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার জন্য নিজের বাবার নামের স্থলে চাচা মুক্তিযোদ্ধা ধীরেন্দ্র নাথ বর্মণের নাম সুকৌশলে ব্যবহার করে আসছেন। শুধু তাই নয় তার মাকে দিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে মুক্তিযোদ্ধা ভাতাও তুলে আসছিলেন। চার ভাইয়ের মধ্যে তার ছোট ভাইয়ের এসএসসি রেজিস্টেশনে বাবার নামের স্থলে বীর মুক্তিযোদ্ধা চাচার নাম ব্যবহার করায় তার নতুন করে সংশোধনী প্রয়োজন হয়নি। সবকিছু পরিকল্পনা মাফিকই চলছিল, কিন্তু বিপত্তি ঘটে মাঝের দুই ভাইয়ের নাম সংশোধনী করতে গিয়ে। রোববার ঠাকুরগাঁও জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে নিজের ভাইদের ভূয়া তথ্য দিয়ে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনের সময় জেলা নির্বাচন অফিসার জিলহাজ উদ্দিনের নিকট বিষয়টি প্রথম খটকা লাগে।

পরে তিনি যাচাই করে দেখেন তথ্য প্রদানকারী ভুল তথ্য উপস্থাপন করছেন। বিষয়টি তিনি সাথে সাথে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ-আল-মামুনকে অবগত করেন এবং তার পরামর্শে জেলা নির্বাচন অফিসে মিথ্যা তথ্য প্রদানকারী যুবককে আটক করা হয়। পরে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পুলিশ নিয়ে জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে গিয়ে আটক যুবক জগেন্দ্র নাথ বর্মণকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি তার অপরাধ স্বীকার করেন। এসময় সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করার অপরাধে তাকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন সদর ইউএনও।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ-আল-মামুন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, পরে নির্বাচন কার্যালয়ের রিপোর্ট অনুযায়ী তার পরিবারের মুক্তিযোদ্ধা ভাতার বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

spot_imgspot_img

আরও