শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২৩

আজ পবিত্র বাইতুল্লাহর ঠিক মাঝ বরাবর এসে কিছুক্ষণের জন্য সূর্য তার ছায়া হারাবে

ইনসাফ | নাহিয়ান হাসান


আজ বাংলাদেশ সময় দুপুর ৩: ১৮ মিনিটে সূর্য পবিত্র কা’বার ঠিক মাঝ বরাবর এসে অল্প সময়ের জন্য তার ছায়া হারাতে যাচ্ছে।

মঙ্গলবার (২৫ মে) সৌদি স্থানীয় সময় ১২:১৮ মিনিটে এই দৃশ্যের অবতারণা ঘটবে বলে জানায় সৌদির জেদ্দা জ্যোতির্বিজ্ঞান সোসাইটি।

জেদ্দা জ্যোতির্বিজ্ঞান সোসাইটির প্রধান মাজেদ আবু জাহরার বক্তব্য মতে, বছরে দু’বার সামান্য সময়ের জন্য সূর্য চক্রটি কা’বার একেবারে মাঝ বরাবর উপরে এসে অবস্থান করে এবং তার নিজস্ব ছায়া হারিয়ে ফেলে।

কারণ হিসেবে তিনি বলেন, বছরে দু’টি সময়ে সূর্য পৃথিবীর নিরক্ষীয় রেখা ও কর্কটক্রান্তির একেবারে মাঝামাঝি স্থানে এসে অবস্থান করায় ছায়া শূন্য হয়ে পড়ে।

পৃথিবীর অক্ষ কাত হয়ে যাওয়ার ফলে সূর্য ২৩.৫ ডিগ্রি উত্তর-দক্ষিণ মহাকাশ নিরক্ষীয় রেখায় ভ্রমণ করে এবং বিষুবক্রান্তিকালীন নিরক্ষীয় রেখার উপরি-সমান্তরালে সূর্য সরাসরি তার সম্মুখ ঠেকে দেয়।

আবু জাহরা বলেন, লোকজন মাটিতে শুধুমাত্র একটি কাঠি রেখেই এসময় কা’বার দিক একেবারে সঠিকভাবে নির্ধারণ করতে পারবে।

কাঠির ছায়ার ঠিক বিপরীত দিকটিই কা’বার সঠিক অবস্থান হবে বলে তিনি জানান।

উল্লেখ্য, জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের পরিভাষায় নিরক্ষরেখা বা বিষুবরেখা বলতে কোন গ্রহের মেরুগুলো থেকে সমান দূরে অবস্থিত গ্রহপৃষ্ঠ প্রদক্ষিণকারী একটি কাল্পনিক বৃত্তকে বোঝায়।

অতি সহজে বলা হয়ে থাকে এটি সেই রেখা যা পৃথিবীর ঠিক মাঝ বরাবর অবস্থিত এবং পৃথিবীকে উত্তর ও দক্ষিণ গোলার্ধে ভাগ করেছে এবং ওই রেখাটির মান শূন্য (০°) ডিগ্রি।

একে বিষুবীয় রেখাও বলা হয়। যেহেতু পৃথিবী সূর্যের সন্মুখে ৬৬১/২ ডিগ্রী কোন করে প্রদক্ষিণ করে, তাই সূর্য সর্বদা নিরক্ষরেখা বা বিষুবরেখার উপর অবস্থান করে না। মার্চ থেকে শুরু করে জুন পর্যন্ত সূর্য উত্তর গোলার্ধে অবস্থান করে। সেই সময় উত্তর গোলার্ধে গ্রীষ্ম ঋতু দেখা যায়। এরপর ধীরে ধীরে পৃথিবী প্রদক্ষিণের ফলে দক্ষিণ গোলার্ধে সূর্যের সামনে আসে। অর্থাৎ জুন মাসের পর থেকে সূর্য দক্ষিণ গোলার্ধের দিকে অগ্রসর হয় এবং বিষুবরেখা কে অতিক্রম করে।

ভূগোলশাস্ত্রে কর্কটক্রান্তি রেখার তাত্ত্বিক পরিচয় হলো অক্ষাংশ রেখা। বিষুবরেখার বিচারে এর গড় অবস্থান মান ২৩ ডিগ্রী ২৬ মিনিট ২২ সেকেন্ড উত্তর অক্ষাংশ বরাবর।

পৃথিবী সূর্যকে আবর্তনের সময়, অক্ষরেখার বিচারে হেলে থাকে। সূর্য-পরিক্রমার সময় অর্ধেক সময় পৃথিবীর উত্তর গোলার্ধে বেশি সময় সূর্যের আলো ও তাপ পায়। একইভাবে বাকি অর্ধেক সময় দক্ষিণ গোলার্ধে বেশি সময় সূর্যের আলো ও তাপ পায়। ফলে পৃথিবীতে ঋতুর পরিবর্তন ঘটে।

কর্কটক্রান্তি রেখার নিকটবর্তী বলে, বাংলাদেশকে কর্কটক্রান্তীয় দেশ বলা হয়।

সূর্যের তাপ ও আলো বেশি পাওয়ার বিচারে দেখা যায়, একটি বিশেষ দিনে সূর্য উত্তর গোলার্ধে একটি বিশেষ অক্ষাংশ বরাবর সবচেয়ে বেশি সময় তাপ ও আলো দেয়। এর অর্থ হলো, সেই অবস্থায় নির্ধারিত দিনটি ও সময় সবচেয়ে বড় হয়।

উত্তর গোলার্ধের এই বিশেষ দিনটি হলো ২১শে জুন। এই দিনে দিবাভাগ হয় ১৪ ঘণ্টায় আর রাত্রি হয় ১০ ঘণ্টায়। এই দিনে সূর্য যে অক্ষাংশ বরাবর অবস্থান করে, সেই রেখাটিই হলো কর্কটক্রান্তি রেখা।

সূত্র: আরব নিউজ

spot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_img
spot_img