বুধবার, জুন ১৬, ২০২১

মুন্সীগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতাদের নির্যাতনে যুবক নিহত

মুন্সীগঞ্জ রামপালে ছাত্রলীগ নেতাদের নির্যাতনে মারা গেছেন রামপাল ইউনিয়নের উত্তর কাজী কসবা এলাকার মৃত বাতেন মিজির ছেলে নয়ন মিজি (৩৩)।

বৃহস্পতিবার (১০ জুন) সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে মারা যান তিনি।

মৃতের মা রাশিদা বেগম জানান, গত মাসে রামপাল ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রান্ত, ছাত্রলীগ নেতা শোভন, চঞ্চল, কাঞ্চন, বাদশা ও খলিল আমার ছেলে নয়নের খামারে কবুতর চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ে। এ ঘটনার প্রতিবাদ করলে তারা নয়নকে মারধর করে সব কিছু নিয়ে যায়। ওই ঘটনায় সদর থানায় একটি মামলাও হয়। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত বুধবার (৯ জুন) বিকেলে একটি মুদি দোকানের সামনে থেকে প্রান্ত ও তার বাহিনী আমার ছেলে নয়ন মিজিকে তুলে নিয়ে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে মারধর করে। পরে সেখান থেকে সিপাহীপাড়া প্রতিভা কিন্ডারগার্ডেনের পেছনে নিয়ে তারা আবার দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আমার ছেলের হাত-পা ভেঙে রেখে দেয়।

রাশিদা বেগম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের হাতে পায়ে ধরেও ছেলেকে বাঁচাতে পারিনি। এমনকি নয়নের দুই মেয়ে ও বোন ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক প্রান্ত, শোভন ও তাদের সহযোগীদের পায়ে ধরেও তাকে বাঁচাতে পারেনি। তারা নির্মমভাবে মেরে নয়নকে মুমূর্ষু অবস্থায় ফেলে রেখে যায়।

পরে দ্রুত নয়নকে উদ্ধার করে মুন্সীগঞ্জ সদর হাসপাতাল, সেখান থেকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে বৃহস্পতিবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান নয়ন।

এই ঘটনায় নিহতের মা রাশিদা বাদি হয়ে রামপাল ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক প্রান্ত (২৮), চঞ্চল (৩২), শোভন (৩২), রনি (৩২), কাঞ্চন (২৬)-এর নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত আরও ৭-৮ জনকে আসামি করে সদর থানায় মামলা দায়ের করেন।

মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মিনহাজ আবেদীন জানান, পূর্ব বিরোধের জের ধরে মারামারির ঘটনায় নয়ন মিজি নিহত হয়েছেন। এই ঘটনার দায়ের হওয়া মামলায় দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

spot_imgspot_img
spot_img

আরও