সোমবার, অক্টোবর ১৮, ২০২১

সিরিয়ায় বাশারের কারণে শুরু হওয়া গৃহযুদ্ধে ৩ লাখ ৫০ হাজার নিহত

সিরিয়ার সুন্নি মুসলিমদের গণহত্যার খলনায়ক ও স্বৈরশাসক বাশার আল আসাদের কারণে গত দশ বছর ধরে দেশটিতে গৃহযুদ্ধ লেগে আছে।
এ যুদ্ধে বাশারকে পুরোপুরি সামরিক সহায়তা করছে ইরান ও রাশিয়া। ইরান সবসময় চেষ্টা করছে পুরো সিরিয়ায় যেন শিয়া মতাদর্শী বাশার ও তার বাহিনীর একচ্ছত্র নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা হয়। এ গৃহযুদ্ধে প্রাণ হারিয়েছে প্রায় পাঁচ লাখ মানুষ। এই সংখ্যা জাতিসংঘ ঘোষিত সংখ্যার দ্বিগুণ।

তবে ২০১৪ সালের পর নতুনকরে গণনা শেষে জাতিসংঘ বলছে, সিরিয়ায় ১০ বছর চলমান গৃহযুদ্ধে তিন লাখ ৫০ হাজারের বেশি লোক নিহত হয়েছে।

শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে দেওয়া বক্তব্যে সংস্থাটির মানবাধিকার বিষয়ক হাইকমিশনার মিশেল ব্যাশলেট এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, আমরা তিন লাখ ৫০ হাজার দুই শ’ নয়জনের একটি তালিকা প্রস্তুত করেছি যারা ২০১১ সালের মার্চ থেকে ২০২১ সালের মার্চ পর্যন্ত সিরিয়ায় যুদ্ধে নিহত হয়েছেন।

তবে এটিই সম্পূর্ণ গণনা নয় বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, একে সিরিয়ার যুদ্ধ সংশ্লিষ্ট হতাহতের সম্পূর্ণ গণনা হিসেবে বিবেচনা করা উচিত হবে না। এই সংখ্যার হেরফের হতে পারে এবং নিহতের প্রকৃত সংখ্যার চেয়ে এটি নিশ্চিতভাবে কম।

মিশেল ব্যাশলেট জানান, মোট নিহতের মধ্যে প্রতি ১৩ জনে একজন নারী ও একজন শিশু। ১০ বছরের অন্তত ২৬ হাজার সাত শ’ ২৭ নারী ও ২৭ হাজার এক শ’ ২৬ শিশু নিহত হওয়ার তথ্য নতুন গণনায় পাওয়া গেছে।

তিনি জানান, সবচেয়ে বেশি সংখ্যক লোক সিরিয়ার উত্তর-পশ্চিমের আলেপ্পো প্রদেশে নিহত হয়েছে। দশ বছরের গৃহযুদ্ধে এই প্রদেশে মোট ৫১ হাজার সাত শ’ ৩১ জন নিহতের সংখ্যা গণনা করা হয়েছে।

এছাড়া দামেস্ক প্রদেশে ৪৭ হাজার চার শ’ ৮৩ জন, হিমস প্রদেশে ৪০ হাজার নয় শ’ ৮৬ জন, ইদলিব প্রদেশে ৩৩ হাজার দুই শ’ ৭১ জন, হামা প্রদেশে ৩১ হাজার নয় শ’ ৯৩ জন ও তারতুস প্রদেশে ৩১ হাজার তিন শ’ ৬৯ জন নিহতের সংখ্যা গণনা করা হয়েছে।

২০১১ সালের মার্চে আরব বসন্তের পরিপ্রেক্ষিতে সিরিয়ার একনায়ক বাশার আল আসাদের পদত্যাগের দাবিতে দেশটির বিভিন্ন শহরে রাস্তায় বিক্ষোভে নামে সাধারণ জনতা। বাশার আল-আসাদ সামরিক উপায়ে এই বিক্ষোভ দমন করতে চাইলে দীর্ঘস্থায়ী গৃহযুদ্ধের মুখে পড়ে দেশটি।

দশ বছর চলমান এই গৃহযুদ্ধে দেশটির জনসংখ্যার অর্ধেকই বাস্তুচ্যুত হয়। জাতিসঙ্ঘের তথ্যানুসারে এক কোটির বেশি লোক যুদ্ধের কারণে বাস্তুচ্যুত হয়।

এছাড়া যুদ্ধের কারণে অন্তত ৬৬ লাখ সিরিয়ান গত ১০ বছরে দেশ ছেড়েছেন। দেশ ত্যাগ করা এই সকল সিরিয়ান নাগরিক প্রতিবেশী তুরস্ক, জর্দান, লেবানন, ইরাকসহ বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নিয়েছেন। তারমধ্যে ৪০ লাখ সিরীয় শরণার্থী হিসেবে আশ্রয় নিয়েছে তুরস্কে।

spot_img
spot_imgspot_img

সর্বশেষ

spot_img
spot_imgspot_img
spot_imgspot_img