বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৮, ২০২২

হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদকে নিষিদ্ধ করতে হবে : চরমোনাই পীর

বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের উস্কানীমূলক কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী রেজাউল করীম বলেছেন, এরা দেশে সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়ে দেশকে অনিশ্চয়তা দিকে নিয়ে দেশকে একটি ব্যর্থ ও অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করতে চায়। এ উস্কানী দেয়ার অপরাধে এদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। সেইসাথে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ নিষিদ্ধ করতে হবে।

আজ এক বিবৃতিতে পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দিক থেকে বিশ্বে অনন্য নজির স্থাপন করেছে বাংলাদেশ। ছোট্ট একটি দেশে এত বেশি জনসংখ্যা তারপর সব ধর্ম ও মতের মানুষের এ দেশে যুগ যুগ ধরে সম্প্রীতি বজায় থাকার পর হঠাৎ করে তথাকথিত ঐক্য পরিষদ দেশে দুইটি শীর্ষ ইসলামী সংগঠনের (ইসলামী আন্দোলন ও হেফাজতে ইসলাম) নামে দুইটি সংগঠনের বিরুদ্ধে উস্কানীমূলক শেস্নাগান দিয়ে তাার দেশে কী করতে চায়? শতাব্দীর সর্বশ্রেষ্ঠ সুযোগ বলে আখ্যায়িত বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধকে সনাক্তকারী প্রতিবেশিদের ইশারায় এই বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িত সম্প্রীতির প্রতি যেকোন হুমকি সমূলে নিবৃত্ত করতে দেশের দায়িত্বশীল নাগরিক হিসেবে যথাপোযুক্ত পদক্ষেপ নিতে বিন্দুমাত্র কার্পন্যবোধ করা উচিত হবে না। বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ বাংলাদেশকে জ্বালিয়ে দিতে চায়? চট্টগ্রাম নিউমার্কেট এলাকায় বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের একটি কর্মসূচিতে আপত্তিকর উস্কানিমূলক কিছু শ্লোগান দিয়ে দেশময় ধর্মপ্রাণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি করা হয়েছে। শেস্নাগানগুলো খুবই আপত্তিকর, ”চরমোনাই এর দুই গালে- জুতা মারো তালে তালে। হেফাজতের দুই গালে- জুতা মারো তালে তালে। একটা একটা—- ধর, ধইরা ধইরা জবাই কর। জালো জালো আগুন জালো।” এইসব শ্লোগানের অর্থ কি? এগুলো কি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষার শ্লোগান? নাকি দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির শ্লোগান।

পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে লাখো শহীদের রক্তের মাধ্যমে অর্জন করা স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশকে জালিয়ে দিয়ে তারা কি করতে চায়? তবে কি চরমোনাই আর হেফাজতের সদ্য সমাপ্ত দুটি কর্মসূচি কে দেখে নিজেরা দুর্ঘটনা ঘটিয়ে এখন বাংলাদেশকে জ্বালিয়ে দিতে চাইছে? বিষয়টি সম্পর্কে সকলের সোচ্চার হওয়া দরকার।

তিনি প্রশাসনকে এধরণের উস্কানীর বিরম্নদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করার দাবি জানান।

spot_img
spot_img
spot_img

সর্বশেষ

spot_img