হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে: চরমোনাই পীর

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী রেজাউল করীম (চরমোনাই পীর) বলেছেন, ইসলাম, দেশ, মুসলিম উম্মাহ’র বিরম্নদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। ইসলাম ও দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব বিরোধী একটি চক্র এ চক্রান্ত করছে। হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ নামের সংগঠনটি প্রকাশ্যে দেশ, ইসলাম, আলেম-ওলামার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। ঐক্য পরিষদের মিছিল ও সমাবেশ থেকে সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষপূর্ণ শ্লোগান দিয়ে দেশে বিদ্যমান সম্প্রীতি নষ্ট করে সাম্প্রদায়িকতা সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে।

সোমবার (৯ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর একটি মিলনায়তনে মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মদ ফজলুল করীম (রহ)-এর জীবন ও কর্ম শীর্ষক আলোচনা সভা ও দুআ মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

কদমতলী থানা সভাপতি মাওলানা মাসউদুর রহমান চাঁদপুরীর সভাপতিত্বে এবং শ্যামপুর থানা সভাপতি মুহাম্মাদ বেলাল হোসেন আরিফ-এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন দলটির মহাসচিব প্রিন্সিপাল মাওলানা ইউনুছ আহমাদ।

এছাড়াও আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা দক্ষিন সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, আনোয়ার হোসেন, ডা. শহিদুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক, মুফতি ইয়াকুব আলী, মাওলানা আবদুল হক, মোশারেফ হোসেন ও আজিজুল হক প্রমুখ।

চরমোনাই পীর বলেন, শনিবার দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের মিছিল এবং সমাবেশ থেকে ইসলামী আন্দোলন ও হেফাজতে ইসলাম, আলেম-উলামা, মসজিদ-মাদরাসার বিরুদ্ধে উসকানিমূলক শ্লোগান দেওয়া হয়েছে। তারা উল্লাস নৃত্যে ও বেপরোয়া শরীরী ভাষায় জ্বালাও-পোড়াও, জবাই করো, জুতা মারো শ্লোগান দিয়েছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বিরুদ্ধে বাংলাদেশের মাটিতে এমন নগ্ন উসকানি ইতোপূর্বে কেউ দিতে সাহস পায়নি।

তিনি বলেন, ভারতে ইসলামবিদ্বেষী উগ্র হিন্দুত্ববাদীরা যে “জয় শ্রীরাম” শ্লোগান দেয়, হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ নামক সংগঠনটি একই শ্লোগান দিয়ে কি এদেশে ধর্মযুদ্ধ করতে চায়? এমন ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ স্বাধীন বাংলাদেশে নির্বিঘ্নে চলতে দেওয়া যায় না। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টে নগ্ন উস্কানিদাতা এসব সংগঠনের বিরুদ্ধে সরকার ও প্রশাসন নিশ্চুপ কেন? এদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। অন্যথায় যে কোন উদ্ভুত পরিস্থিতির দায় ঐক্যপরিষদকে গ্রহণ করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *